তুরস্কে সেনা অভ্যুত্থান ব্যর্থ, আটক ১৫০০
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

তুরস্কে সেনা অভ্যুত্থান ব্যর্থ, আটক ১৫০০

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার প্রচেষ্টায় সেনা অভ্যুত্থান ব্যর্থ হয়েছে। সরকারের পক্ষে রাজপথে অবস্থান নিয়েছে ক্ষমতাসীন জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট দলের (একেপি) সমর্থকরা। ১৫০০ বিদ্রোহী সেনা সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।

গতকাল শুক্রবার রাতে একটি টেলিভিশন চ্যানেলের মাধ্যমে অভ্যুত্থানের ঘোষণা দেয় তুরস্ক সেনাবাহিনীর একাংশ। সেনাবাহিনীর বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, এখন থেকে পিস কাউন্সিল দেশ পরিচালনা করবে। দেশে কারফিউ এবং মার্শাল ল জারি করা হয়েছে।

Turkish Army Attempt

তুরস্কে অভ্যুত্থান পক্ষের বেশ কয়েকজন সেনা সদস্য রাজধানী ইস্তান্বুলের বসফরাস সেতুতে আত্মসমর্পণ করেছে।

এরপর ট্যাঙ্ক নিয়ে রাজধানী আঙ্কারা এবং ইস্তান্বুলসহ বড় বড় শহরগুলোর রাস্তায় নামে সেনাবাহিনীর সদস্যরা। আজ শনিবার সকাল পর্যন্ত ৬০ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। নিহতদের মধ্যে কমপক্ষে ১৭ জন পুলিশ সদস্য রয়েছে। সরকারি বাহিনীর হাতে এখন পর্যন্ত ১৫০০ এর বেশি বিদ্রোহী আটক হয়েছে। এদের অধিকাংশই সেনা সদস্য।

এদিকে অভ্যুত্থান পক্ষের বেশ কয়েকজন সেনা সদস্য রাজধানী ইস্তান্বুলের বসফরাস সেতুতে আত্মসমর্পণ করেছে বলে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম সূত্রে খবর পাওয়া গেছে।

সেনা অভ্যুত্থান শেষ হওয়ার আগেই ইস্তান্বুলে ফিরেছেন অবকাশে থাকা প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। ইস্তান্বুলের বিমানবন্দরে নেমেই সংবাদ সম্মেলনে করেন তিনি। অভ্যুত্থানে অংশ নেওয়া সেনা সদস্যদের দেশদ্রোহী আখ্যা দিয়ে এরদোয়ান বলেন, এর সঙ্গে জড়িতদের বড় মূল্য দিতে হবে।

ক্ষমতাসীন জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট দলের (একেপি) সমর্থকদের প্রতি রাস্তায় নেমে আসার আহ্বান জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট। তার এই আহ্বানে সাড়া দিয়ে কয়েক হাজার সমর্থক রাস্তায় নেমেছে। সমর্থকদের বিক্ষোভের মুখে সেনা বাহিনীর বিদ্রোহী অংশ ইস্তান্বুলের বিমানবন্দর থেকে সরে যেতে বাধ্য হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে এরদোয়ান বলেন, অভ্যুত্থানে জড়িত কয়েকজন অফিসারকে ইতোমধ্যে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এখন সেনাবাহিনীতে শুদ্ধি অভিযান চালানো হবে।

প্রেসিডেন্টের এমন ঘোষণার পরই সেনাপ্রধান হুলুসি আকারকে দায়িত্ব থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়। এর পরিবর্তে ভারপ্রাপ্ত সেনাপ্রধান হিসেবে জেনারেল উমিত দুনদারের নাম ঘোষণা করেন প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান।

এই ঘটনাকে ক্ষুদ্র একটি গোষ্ঠীর প্রচেষ্টা বলে বর্ণনা করেছেন প্রেসিডেন্ট। এর বিরুদ্ধে সাধারণ জনগণকে রাস্তায় নেমে আসার আহ্বান জানিয়ে রাজধানী আঙ্কারা সফরের ঘোষণাও দিয়েছেন তিনি।

একটি টেলিভিশন চ্যানেলে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এরদোয়ান বলেন, সেনাবাহিনীর একটি অংশ বেআইনিভাবে অভিযান শুরু করেছে। এ ধরনের অপচেষ্টা বরদাস্ত করা হবে না। এর জন্য দায়ী ব্যক্তিদের চরম মূল্য দিতে হবে।

প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানের সমর্থকরা ইস্তান্বুলের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভেতরে অবস্থান নিয়েছেন। অন্যদিকে অভ্যূত্থানকারীদের হটিয়ে রাষ্ট্রীয় প্রচার মাধ্যম টিআরটি এর নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে আঙ্কারার সরকার সমর্থকরা।

অপর এক বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইয়ালদিরিম জানান, সেনাবাহিনীর একটি অংশ বেআইনি অভিযান শুরু করেছে। কোনো অনুমতি ছাড়াই এই অভিযানে নেমেছে সেনাবাহিনীর সদস্যরা। এটি কোনো অভ্যুত্থান নয়। এমনকি সরকারে কোনো পরিবর্তন হয়নি।

অর্থসূচক/পিএ/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ