রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে চূড়ান্ত অনুমোদন
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে চূড়ান্ত অনুমোদন

পাবনার রূপপুরে দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে চূড়ান্ত অনুমোদন বা সাইট লাইসেন্স দিল বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ। ফলে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটির মূল নির্মাণ কাজ শুরু করতে আর কোনো বাধা থাকলো না বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের।

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ লাইসেন্স প্রদান করা হয়।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে চূড়ান্ত অনুমোদন পেল বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশন। ছবি মহুবার রহমান।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে চূড়ান্ত অনুমোদন পেল বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশন। ছবি মহুবার রহমান।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ড. নঈম চৌধুরী পরমাণু শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যান মো. আলী জুলকারনাইনের হাতে এ লাইসেন্স তুলে দেন।

এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান, মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী বলেন, পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে সাইট লাইসেন্সটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ উল্লিখিত স্থানে যে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করা যাবে তার একটি আনুষ্ঠানিক অনুমোদন হলো সাইট লাইসেন্স। এটি ছাড়া এ বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের মূল কাজ শুরু করা সম্ভব হতো না।

তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক মানদণ্ড অনুসরণ করে ধাপে ধাপে এগিয়ে যাচ্ছে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রকল্পের কাজ। এক্ষেত্রে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক সব বাধ্যবাধকতা বিবেচনায় নেওয়া হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান বলেন, রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের মাধ্যমে বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে যাবে। তখন বিদ্যুৎ নিয়ে দেশে আর কোনো সমস্যা থাকবে না।

উল্লেখ, পাবনার রূপপুরে দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে রাশিয়ান ফেডারেশনের প্রতিষ্ঠান অ্যাটমস্ট্রয় এক্সপোর্টের সঙ্গে চুক্তি করেছে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশন।

রাশিয়ার এ প্রতিষ্ঠানটি ১২০০ করে মোট ২৪০০ মেগাওয়াটের দুটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র তৈরি করবে; যাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ১২ দশমিক ৬৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার (১ লাখ ১ হাজার ২০০ কোটি টাকা)।

আইন অনুযায়ী, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মালিকানা থাকবে বাংলাদেশ আনবিক শক্তি কমিশনের হাতে। আর কেন্দ্রটি পরিচালনার দায়িত্ব পাবে ‘নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্ল্যান্ট কোম্পানি বাংলাদেশ’।

এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ‘লাইফ টাইম’ হচ্ছে ৫০ বছর। এর প্রথম ইউনিট ২০২১ সালের মধ্যে চালু করা সম্ভব হবে বলে কর্তৃপক্ষ আশা করছে।

অর্থসূচক/শাফায়াত/শাহীন

এই বিভাগের আরো সংবাদ