শিক্ষার্থীদের প্লেনে চড়ার স্বপ্ন পূরণ করছে ইউএস-বাংলা
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

শিক্ষার্থীদের প্লেনে চড়ার স্বপ্ন পূরণ করছে ইউএস-বাংলা

অবেশেষে দেশের এক হাজার মেধাবী উচ্চ শিক্ষার্থীদের প্লেনে চড়ানোর ঘোষণা বাস্তবে রূপ দিল ইউ-এস বাংলা এয়ারলাইন্স। শিক্ষার্থীদের নিয়ে ‘ফ্লাইং দ্য ফিউচার অব বাংলাদেশ’ কার্যক্রম শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি। একে স্বাগত জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের নিয়ে 'ফ্লাইং দ্য ফিউচার অব বাংলাদেশ' কার্যক্রম শুরু করেছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স। ছবি সংগৃহীত

শিক্ষার্থীদের নিয়ে ‘ফ্লাইং দ্য ফিউচার অব বাংলাদেশ’ কার্যক্রম শুরু করেছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স। ছবি সংগৃহীত

আজ সোমবার ইউ-এস বাংলা এয়ারলাইন্সের গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রতিষ্ঠানটির ভাষ্য, ‘ফ্লাইং দ্য ফিউচার অব বাংলাদেশ’ কার্যক্রমে অংশ নিতে পেরে শিক্ষার্থীরা অত্যন্ত আনন্দিত। তারা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। এ ধরনের উদ্যোগ শিক্ষার্থীদের মাঝে বাংলাদেশের এভিয়েশন শিল্প সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা দিবে। পর্যটন বর্ষে এ ধরনের উদ্যোগ উচ্চ শিক্ষার্থীদের মাঝে পর্যটন শিল্প বিকাশে আরো সক্রিয় ভূমিকা রাখবে। দেশের সব সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন কলেজগুলোকে এ প্রোগ্রামের আওতায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

ইউএস- বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমান বহরে বর্তমানে ৭৮ আসনবিশিষ্ট তিনটি ড্যাশ ৮-কিউ ৪০০ এয়ারক্রাফট রয়েছে। যা রাজধানী থেকে চট্টগ্রাম, সিলেট, কক্সবাজার, যশোর, সৈয়দপুর, রাজশাহী ও বরিশাল রুটে প্রতিদিন ব্যবহৃত হচ্ছে। আগামী আগস্টে দু’টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সে যুক্ত হবে।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স যাত্রা করার পর থেকে অন-টাইম সার্ভিস, আন্তর্জাতিক মানের ইন-ফ্লাইট সার্ভিস পরিচালনা করে আসছে। মূলত এজন্যই যাত্রী সাধারণের কাছে এটি একটি নির্ভরযোগ্য এয়ারলাইন্স হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। সঠিক সময়ে ফ্লাইট পরিচালনার রেকর্ড শতকরা প্রায় ৯৮.৭ ভাগ। যা দেশীয় এয়ারলাইন্সের মধ্যে সর্বাধিক এবং স্বল্প যাত্রায় প্রায় শতভাগ যাত্রীদের সন্তুষ্টি লাভ করেছে এয়ারলাইন্সটি। দেশীয় বিমান পরিবহন খাতে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সই একমাত্র কোম্পানী যা আইএসও ৯০০১:২০০৮ সার্টিফাইড এয়ারলাইন্স।

‘ফ্লাই ফাস্ট-ফ্লাই সেফ’ স্লোগান নিয়ে ২০১৪ সালের ১৭ জুলাই যাত্রা করা ইউএস-বাংলা অভ্যন্তরীণ সেক্টরে অধিক প্রতিযোগিতার মধ্যেও মার্কেট শেয়ারের অর্ধেকের বেশি অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। যাত্রা শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত বারো হাজারের অধিক ফ্লাইট পরিচালনা করেছে প্রতিষ্ঠানটি। যা অভ্যন্তরীণ রুটে একটি মাইলফলক। ইতোমধ্যে ইউএস-বাংলা ঢাকা-কাঠমুন্ডু ফ্লাইট পরিচালনার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক রুটে ডানা মেলেছে। শিগগিরই ঢাকা থেকে কলকাতা, পারো, কুয়ালালামপুর, সিঙ্গাপুর, ব্যাংকক, দোহা, মাস্কাট রুটে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করার পরিকল্পনা করছে প্রতিষ্ঠানটি।

অর্থসূচক/ডিএইচ

এই বিভাগের আরো সংবাদ