শুরুর অপেক্ষায় আখাউড়া-লাকসাম ডাবল রেললাইন নির্মাণ কাজ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

শুরুর অপেক্ষায় আখাউড়া-লাকসাম ডাবল রেললাইন নির্মাণ কাজ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া থেকে কুমিল্লার লাকসাম পর্যন্ত ৭২ কিলোমিটার ডাবল রেললাইন নির্মাণ কাজ শুরুর উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এ লক্ষ্যে সিটিএম জয়েন্ট ভেঞ্চারের সঙ্গে চুক্তি করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে।

বুধবার রাজধানীর রেল ভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে এ চুক্তি সই হয়। বাংলাদেশ রেলওয়ের পক্ষে রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক ও প্রকল্প পরিচালক সাগর কৃষ্ণ চক্রবর্তী এবং  সিটিএম জয়েন্ট ভেঞ্চার কোম্পানির পক্ষে  ইঞ্জিনিয়ার গোলাম মো. আলমগীর চুক্তিপত্রে সই করেন।rail

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, আখাউড়া-লাকসাম ডাবল লাইন রেলওয়েতে ৭২ কিলোমিটার লাইনে ১৩টি বড় সেতুসহ মোট ৪৬টি ছোট-বড় সেতু ও কালভার্ট নির্মাণ করা হবে। এছাড়া এই রুটে কম্পিউটারাইজ সিগন্যাল ব্যবস্থাসহ আখাউড়া ও লাকসাম রেলস্টেশনসহ ১১টি বি-ক্লাস রেলস্টেশন নির্মাণ করা হবে।

থৌভাবে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান  সিটিএম জেভি রেল নির্মাণ করবে । ট্যাক্স-ভ্যাটসহ এতে মোট ব্যয় হবে ৩ হাজার ৯৩৬ কোটি ২২ লাখ টাকা। ২০২০ সালের জুনে এ প্রকল্পের নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

এর আগে ২৮ ফেব্রুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া থেকে কুমিল্লার লাকসাম পর্যন্ত ৭২ কিলোমিটার ডাবল রেললাইন প্রকল্প নির্মাণের কাজ তদারকির জন্য পাঁচটি যৌথ পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে।

পরামর্শক প্রতিষ্ঠান যৌথভাবে তদারকির কাজ পেয়েছে, সেগুলো হলো—কোরিয়ার দোহা ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড, কোরিয়া রেল নেটওয়ার্ক অথরিটি, জাপানের অরিয়েন্টাল কনসালট্যান্টস গ্লোবাল কোম্পানি লিমিটেড, ভারতের বালাজি রেল রোড সিস্টেমস লিমিটেড ও বাংলাদেশের ডেভেলপমেন্ট ডিজাইন কনসালট্যান্ট লিমিটেড।

চুক্তি সই অনুষ্ঠানে রেলপথমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক বলেন, এই প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে যাত্রী ও পণ্য পরিবহন থেকে শুরু করে দেশের সার্বিক যোগাযোগব্যবস্থা উন্নত হবে। বর্তমান সরকার রেলের উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে।বর্তমানে ৪০টি প্রকল্প চলমান রয়েছে।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. ফিরোজ সালাহ উদ্দিন, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. আমজাদ হোসেন প্রমুখ।

অর্থসূচক/এমআই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ