বিদায় মোহাম্মদ আলী
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

বিদায় মোহাম্মদ আলী

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্টাকি শহরের লুইসভিলে মুষ্টিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলীর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। বিশ্বনেতা ও ক্রীড়াব্যক্তিত্বসহ কয়েক হাজার মানুষ আলীকে শেষ বিদায় জানাতে গতকাল শুক্রবার তার শহরে উপস্থিত হয়েছিলেন। কেভহিল সিমেট্রিতে স্থানীয় সময় গতকাল শুক্রবার সকাল ৯টায় এই ক্রীড়াবিদকে দাফন করা হয়। শুধুমাত্র তার পরিবার আর ঘনিষ্ঠ বন্ধুরা দাফনের সময় উপস্থিত ছিলেন।Mohammad Ali

এর আগে গত বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ১২টায় লুইসভিল শহরের ফ্রিডম হলে মোহাম্মদ আলীর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রবাসী বাংলাদেশিসহ হাজারো মানুষ অংশ নেন। আলীকে ‘মানবতার প্রতীক’ হিসেবে অভিহিত করে তার জানাজায় যোগ দিয়েছিলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোগান।

এরপর গতকাল শুক্রবার সকালে মোহাম্মদ আলীর কফিন নিয়ে লুইসভিলের বিভিন্ন রাস্তায় প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে প্রদিক্ষণ করা হয়। কেভহিল ন্যাশনাল সিমেট্রিতে মোহাম্মদ আলীর মরদেহ নিয়ে যাওয়ার পথে হাজারো ভক্ত-অনুরাগী তাকে ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানান। এ কিংবদন্তির মরদেহ লুইসভিলের প্রধান প্রধান এলাকা প্রদক্ষিণ শেষে শৈশবের স্মৃতিবিজরিত বাড়ি এবং তার নামে গড়ে তোলা জাদুঘরে নেওয়া হয়। লুইসভিলের সড়ক প্রদক্ষিণের সময় অভিনেতা উইল স্মিথ, মুষ্টিযোদ্ধা মাইক টাইসন ও লেনস্ক লিউস মোহাম্মদ আলীর কফিন বহন করেন।Mohammad Ali4

দাফনের পর গতকাল দুপুরে কেএফসি ইয়ামি হলে আন্তঃধর্মীয় স্মরণানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন, মুষ্টিযোদ্ধা মাইক টাইসন, লায়লা আলী, অভিনেতা উইল স্মিথ, কমেডিয়ান বিলি ক্রিস্টালসহ খ্যাতিমান ব্যক্তিরা অংশ নেন। এতে অংশ নিতে আমেরিকার বিভিন্ন রাজ্য থেকে মুসলমানরা ছুটে যান কেন্টাকিতে। অনুষ্ঠানের জন্য ১৪ হাজার টিকিট ছাড়া হলে এক ঘণ্টার মধ্যেই সব বিক্রি হয়ে যায়। স্থানীয় সময় গতকাল শুক্রবার দুপুর ২টায় মূল অনুষ্ঠান শুরু হয়। এসময় কেএফসি ইয়ামি হলের ভেতরে পর্যাপ্ত জায়গা না পাওয়া হলের বাইরে হাজারো ভক্ত-অনুরাগী ভিড় জমান। এই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ৫০টির বেশি দেশের মানুষ লুইসভিলে হাজির হয়েছিলেন।Mohammad Ali2

কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে মুহাম্মদ আলীকে শ্রদ্ধা আর স্মরণের অনুষ্ঠান শুরু হয়। এরপর মুসলিম, ক্রিশ্চিয়ান, ইহুদিসহ বিভিন্ন ধর্ম ও বর্ণের মানুষ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন। মুহাম্মদ আলীর খেলা, সামাজিক আর রাজনৈতিক অর্জন, শান্তি আর মানবাধিকার অর্জনে তার ভূমিকার কথা তুলে ধরেন তারা। সবসময় ন্যায়-নীতির পক্ষে তার শক্ত অবস্থান নেওয়ার কথাও উঠে আসে তাদের বক্তেব্যে।

অনুষ্ঠানে থাকতে না পারলেও বিবৃতি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। মোহাম্মদ আলীকে বিশাল, উজ্জ্বল এবং তার যুগের সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যক্তি বলে বর্ণনা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।Mohammad Ali3

প্রসঙ্গত, ১৯৪২ সালে কেন্টাকি শহরের লুইসভিলে খ্রিষ্টান পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন মোহাম্মদ আলী। সে সময় তার নাম ছিল ক্যাসিয়াস ক্লে। ১৯৬৪ সালে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন তিনি। এরপর সারাবিশ্বের মুসলমানদের অনুপ্রেরণা দিতে মুষ্টিযোদ্ধা ও বক্তা হিসেবে বাংলাদেশসহ অনেক দেশ ভ্রমণ করেন মোহাম্মদ আলী। বিশ্বে মানবাধিকার আন্দোলনে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখেন তিনি। ৭৪ বছর বয়সে গত ৩ জুন অ্যারিজোনার ফিনিক্সের একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন মোহাম্মদ আলী।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ