‘প্যাকেজ ভ্যাট ইস্যুতে রাস্তায় নামতে বাধ্য হবে ব্যবসায়ীরা’
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘প্যাকেজ ভ্যাট ইস্যুতে রাস্তায় নামতে বাধ্য হবে ব্যবসায়ীরা’

পূর্বের নিয়মে প্যাকেজ ভ্যাট স্থায়ীকরণ করে বর্ধিত প্যাকেজ ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে পুরাতন ঢাকা ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদ। একইসঙ্গে আগামী ২০ জুনের মধ্যে দাবি পূরণ না হলে রোজার ঈদের পর বৃহত্তর কর্মসূচি দেওয়ার হুমকিও দিয়েছে সংগঠনটি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটি (ডিআরইউ) গোলটেবিল মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানায় সংগঠনটি।

বৃহস্পতিবার ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটি (ডিআরইউ) গোলটেবিল মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে পুরাতন ঢাকা ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদ। ছবি মহুবার রহমান।

বৃহস্পতিবার ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটি (ডিআরইউ) গোলটেবিল মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে পুরাতন ঢাকা ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদ। ছবি মহুবার রহমান।

সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সমন্বয়কারী মো. গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী খোকন বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে প্যাকেজ ভ্যাট তুলে দিয়ে নামমাত্র প্যাকেজ ভ্যাট রাখা রয়েছে। তাই পূর্বের নিয়মে প্যাকেজ ভ্যাট আদায় করার জন্য আমরা সরকারকে ২০ জুন পযর্ন্ত সময় দিচ্ছি। এর মধ্যে আমাদের দাবি পূরণ না হলে ঈদের পর ব্যবসায়ীরা দাবি আদায়ে রাস্তায় নামতে বাধ্য হবে।

তিনি বলেন, দেশের ক্ষুদ্র মাঝারি শিল্প খাত জাতীয় অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে। কিন্তু উৎপাদিত পণ্য বাজারজাত করার আগে ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট পরিশোধের বিধান ভ্যাট আইনে থাকার কারণে এই খাতের অন্তর্ভুক্ত শিল্প ব্যবসা বাণিজ্য মারাত্নক সমস্যায় পড়ছে।

তিনি আরও বলেন, যে রেয়াতি ব্যবস্থা চালু আছে তার সুবিধা বড় বড় শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো ভোগ করলেও ক্ষুদ্র মাঝারি খাতের বেশিরভাগ শিল্প সেই সুবিধা ভোগ করতে পারছে না। কারণ রেয়াত পেতে হলে গেলে উপকরণের বিল অব লেডিং অথবা মূসক/ভ্যাট চালান দাখিল করতে হয়। কিন্তু এই খাতের বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান নিজেরা উপকরণ আমদানি না করে স্থানীয় বাজার থেকে উপকরণ ক্রয় করায় বিক্রেতার কাছ মূসক চালান পায় না। ফলে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের প্রতিষ্ঠানগুলো রেয়াতি সুবিধা পায় না।

সংবাদ সম্মেলন সংগঠনটির পক্ষ থেকে বেশকিছু দাবি তুলে ধরা হয়। সেগুলো হচ্ছে- যেসব প্রতিষ্ঠান ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট পরিশোধ করতে সক্ষম, সেসব প্রতিষ্ঠানের জন্য রেয়াত সুবিধা নিয়ে ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট পরিশোধ করার বিধান রাখা; যারা রেয়াত গ্রহণে অসমর্থ তাদের মোট বিক্রয় মূল্যের উপর ৩ শতাংশ ভ্যাট পরিশোধের সুযোগ প্রদান করা এবং খুচরা ও পাইকারি বিক্রির সকল পর্যায়ে প্যাকেজ ভ্যাট পূর্বের নিয়মে বহাল রাখা।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সমন্বয়কারী মো. কামাল হোসেন কামাল, আবুল খায়ের, মোহাম্মদ ইকবাল জামাল (জুয়েল), হাজী মো. নাসির উল্লাহ প্রমুখ।

অর্থসূচক/মাইদুল/শাহীন

এই বিভাগের আরো সংবাদ