১১ মাসের রপ্তানি আয় লক্ষ্যমাত্রার বেশি
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

১১ মাসের রপ্তানি আয় লক্ষ্যমাত্রার বেশি

২০১৫-১৬ অর্থ বছরের প্রথম ১১ মাসে রপ্তানি আয় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেড়েছে। আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় এই আয় বেড়েছে ৮ দশমিক ৯৫ শতাংশ। আলোচ্য সময়ে রপ্তানি আয় হয়েছে ৩ হাজার ৬৬ কোটি ৪২ লাখ ১০ হাজার ডলারের পণ্য। কিন্তু ২০১৪-১৫  অর্থবছরে যা ছিল ২ হাজার ৮১৪ কোটি ৪৩ লাখ ৮০ হাজার ডলারের সমপরিমাণ।

Loading red cargo Container (done in 3d)

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) জুন মাসে প্রকাশিত হালনাগাদ প্রতিবেদনে এই তথ্য জানা গেছে।

তথ্যে জানা যায়, গত মে মাসে ৩১১ কোটি ২০ লাখ ডলারের লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে রপ্তানি আয় হয়েছে ৩০২ কোটি ৬৯ লাখ ৯০ হাজার ডলার। তবে মে মাসে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে রপ্তানি আয় কমেছে ২ দশমিক ৭৩ শতাংশ।

গত অর্থবছরের একই সময়ে রপ্তানি আয় হয়েছিল ২৮৪ কোটি ১১ লাখ ৩০ হাজার ডলার।

চলতি অর্থবছরের আলোচিত সময়ে নিটওয়্যারে রপ্তানি আয় হয়েছে ১ হাজার ১৯২ কোটি ২ লাখ ডলার। গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় বেড়েছে ৬ দশমিক ৭৪ শতাংশ। গত অর্থবছর একই সময়ে এই খাতের রপ্তানির পরিমাণ ছিল ১ হাজার ১১৬ কোটি ৭৫ লাখ ৩০ হাজার ডলার।

আলোচিত সময়ে ওভেনখাত থেকে রপ্তানি আয় এসেছে ১ হাজার ৩১৬ কোটি ৩৪ লাখ ২০ হাজার ডলার। গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ১ হাজার ১৭৫ কোটি ৭২ লাখ ১০ হাজার ডলার । সেই হিসাবে রপ্তানি বেড়েছে ১১ দশমিক ৯৬ শতাংশ।

গত অর্থবছরের তুলনায় এই অর্থবছরের আলোচ্য সময়ে রপ্তানি বেড়েছে তৈরিকৃত ভোগ্যপণ্যে ৯ দশমিক ৪৯ শতাংশ, কেমিক্যাল পণ্যে ৫ দশমিক ৯১ শতাংশ, চামড়া ও চামড়া জাতীয় পণ্যে দশমিক ৬৯ শতাংশ, পাট পণ্যে ৩ দশমিক ৫৯ শতাংশ, বিশেষায়িত বস্ত্রে ২ দশমিক ৬৮ শতাংশ, ইঞ্জিনিয়ারিং পণ্যে ১৬ দশমিক ২৫ শতাংশ, ফার্নিচার রপ্তানিতে ১৮ দশমিক ৭৬ শতাংশ।

তবে আলোচ্য সময়ে রপ্তানি কমেছে হিমায়িত খাদ্যে ৯ দশমিক ০৫ শতাংশ, কৃষি পণ্যে দশমিক ৮৬ শতাংশ, প্লাস্টিক পণ্যে ১১ দশমিক ৪৯ শতাংশ, সিরামিক পণ্যে ১৫ দশমিক ২১ শতাংশ।

মাহমুদ/টি

এই বিভাগের আরো সংবাদ