আরও ৩ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » শিক্ষা

আরও ৩ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন

দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় যুক্ত হচ্ছে আরও ৩টি বিশ্ববিদ্যালয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ বিষয়ে অনুমোদন দিয়েছেন বলে জানা গেছে। শিগগিরই এ বিষয়ে অস্থায়ী অনুমোদনপত্র জারি করবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এনিয়ে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা হবে ৯৫টি।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. হেলাল উদ্দিন এ সব তথ্য জানিয়েছেন।

অনুমোদন পাওয়া বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে কেরানীগঞ্জে প্রতিষ্ঠা করা হবে রবীন্দ্র সৃজনকলা বিশ্ববিদ্যালয়। এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা শিক্ষাবিদ অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি নাম হবে, টেগোর ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ আর্টস।

প্রয়াত রাজনীতিবিদ এ.কে.এম. শামসুজ্জোহার নামে নারায়ণগঞ্জে রূপায়ণ এ.কে.এম. শামসুজ্জোহা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোক্তা লিয়াকত আলী খান মুকুল।

বরিশালের বেসরকারি ইনফ্রা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের চেয়ারম্যান ইমরান চৌধুরীর উদ্যোগে বরিশালে প্রতিষ্ঠা করা হবে ইউনিভার্সিটি অব গ্লোবাল ভিলেজ। এই বিশ্ববিদ্যালয়টির পরিচালনা পর্ষদে আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সুজিত রায় নন্দী এবং সাবেক ছাত্রলীগ নেতা শওকত হোসেন খানও রয়েছেন বলে জানা গেছে।Ministry of education

শিক্ষা মন্ত্রলায়ের কর্মকর্তারা জানান, ২০০৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত ৪১টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন দিয়েছে সরকার। কিছুদিন আগে দুই দফায় ৭টি নতুন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকায় তিনটি এবং চট্টগ্রাম, খুলনা, কুষ্টিয়া ও মানিকগঞ্জে একটি করে বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। আরও কয়েকটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন অনুমোদন দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা আরও জানান, নতুন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে বেশকিছু শর্ত দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে প্রস্তাবিত বিশ্ববিদ্যালয়ের কমপক্ষে ২৫ হাজার বর্গফুট আয়তনের নিজস্ব বা ভাড়া করা ভবন, কমপক্ষে তিনটি অনুষদ ও ছয়টি বিভাগ, পর্যাপ্ত শ্রেণিকক্ষ, লাইব্রেরি, ল্যাবরেটরি, শিক্ষার্থীদের জন্য কমন রুম, সেমিনার কক্ষসহ পর্যাপ্ত অবকাঠামো থাকতে হবে।

প্রসঙ্গত, দেশে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে ৩৭টি। প্রতিবছর স্নাতক ও সম্মান প্রথমবর্ষে প্রায় সাড়ে ৮ লাখ শিক্ষার্থী ভর্তি হয়। শিক্ষার্থীর তুলনায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় অনেক বেশি এবং সবগুলোর শিক্ষার মানও ভালো না বলে মনে করছেন শিক্ষাবিদরা। তবে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা আরও বাড়ানো উচিত বলে জানিয়েছেন তারা।

অর্থসূচক/এস/পিএ/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ