‘ব্রেক্সিট মার্কিন অর্থনীতিকে ধাক্কা দেবে’
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘ব্রেক্সিট মার্কিন অর্থনীতিকে ধাক্কা দেবে’

ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে ব্রিটেন বের হয়ে আসার সিদ্ধান্ত (ব্রেক্সিট) মার্কিন অর্থনীতিতেও ধাক্কা দেবে বলে সতর্ক করেছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের প্রধান জ্যানেট ইয়েলেন।

তিনি বলেন, এ সিদ্ধান্তে বিনিয়োগকারীদের আস্থা হারাতে পারে। ফলে তা মার্কিন বাজারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করতে পারে। অর্থনীতির ওপর পড়তে পারে নেতিবাচক প্রভাব।

ব্রেক্সিট সিদ্ধান্তে আগামী ২৩ জুন গণভোটের আয়োজন করেছে ব্রিটেন। দেশটি ইইউ থেকে বেরিয়ে আসছে কি-না তা এদিন পাকা হবে।

ফেডারেল রিজার্ভ প্রধান জ্যানেট ইয়েলেন।

ফেডারেল রিজার্ভ প্রধান জ্যানেট ইয়েলেন।

ইয়েলেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্র শিগগির সুদের হার বাড়াচ্ছে কি-না তা এ সিদ্ধান্তের ওপরও অনেকটা নির্ভর করছে।

তবে যুক্তরাষ্ট্রে শ্রম বাজারের উত্থান ও মূল্যস্ফীতির ২ শতাংশ লক্ষ্যমাত্রা অর্জন হলে এ সিদ্ধান্ত পাকা হতে পারে বলে তিনি ইংগিত দেন।

১৪-১৫ জুন ফেডের আগামী বৈঠক বসতে যাচ্ছে। এ বৈঠকেই সুদের হার বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আসতে পারে বলে বাজারে গুজব রয়েছে। তবে মে মাসে শ্রম বাজারে রেকর্ড হতাশা এই সম্ভাবনাকে অনেকটা ক্ষীণ করে দিয়েছে। মে মাসে দেশটিতে নতুন চাকরি হয়েছে মাত্র ৩৮ হাজার। অথচ, এ মাসে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ লাখ ৬২ হাজার।

ইয়েলেন বলেন, মে মাসে চাকরি বাজারে হতাশা দেখা গেছে। তবে আগামী মাসে একটা সুফল আসতে পারে।

ব্রেক্সিট প্রক্রিয়া বিশ্ব অর্থনীতিকেও ধাক্কা দিতে পারে- এ ধরনের হুঁশিয়ারি বরাবরই দিয়ে আসছিলেন অর্থ বিশ্লেষকরা। গতকাল সোমবার এ সুরে তাল দিলেন ইয়েলেন।

এর আগে ফেডের গভর্নর বোর্ডের এক অর্থনীতিবিদ জানান, আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে ইউরোপীয় বাজারের যোগসূত্র অনেক বেশি দৃঢ়। তাই ইউরোপের অর্থনীতিতে কোনো ধরনের নেতিবাচক প্রভাব প্রভাব পড়লে তা বিশ্ব অর্থনীতিকে ধাক্কা দেবে না এমন নয়। এটা মার্কিন অর্থনীতিকে পেছনে ঠেলে দিতে বাধ্য করবে।

গত ডিসেম্বরে সর্বশেষ সুদের হার বাড়ায় যুক্তরাষ্ট্র। দীর্ঘ এক যুগের মধ্যে এসময় প্রথমবারের মতো ০.২৫ শতাংশীয় পয়েন্ট সুদের হার বাড়ানো হয়। আগামী ১৪-১৫ জুনের বৈঠকে সুদের হার আরেক দফা বাড়ানোর সম্ভাবনা আছে। আর যদি তা না হয়, তবে ফেড আরও একমাস অর্থাৎ জুলাইয়ের বৈঠক পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

অর্থসূচক/শাহীন

এই বিভাগের আরো সংবাদ