মেডিকেল বোর্ডকে তনুর ডিএনএ প্রতিবেদন দিল সিআইডি
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

মেডিকেল বোর্ডকে তনুর ডিএনএ প্রতিবেদন দিল সিআইডি

কুমিল্লার ভিক্টোরিয়া কলেজের ছাত্রী সোহাগী জাহান তনুর ডিএনএ পরীক্ষার প্রতিবেদন তার ময়নাতদন্তকারী মেডিকেল বোর্ডের কাছে জমা দিয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

আদালতের আদেশে দ্বিতীয়বার তনুর ময়নাতদন্তের জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ডে দেওয়া হয়েছে প্রতিবেদনটি। আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে ওই প্রতিবেদন মেডিকেল বোর্ডের প্রধানের কাছে হস্তান্তর করে সিআইডি।

ডিএনএর পুরো প্রতিবেদন দ্বিতীয় ময়নাতদন্তকারী মেডিকেল বোর্ডকে দেওয়ার জন্য গত রোববার সিআইডিকে আদেশ দেন কুমিল্লার অতিরিক্ত প্রধান নির্বাহী হাকিম জয়নাব বেগম। আদালতের ওই আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে ডিএনএর সাতটি পরীক্ষার প্রতিবেদনই মেডিকেল বোর্ডকে দিল সিআইডি।

প্রসঙ্গত, তনুর বাবার ইয়ার হোসেন কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্ট বোর্ডের একজন অফিস সহায়ক। পরিবারের সঙ্গে সেনানিবাসেই থাকতেন তনু। গত ২০ মার্চ রাতে বাসার কাছেই একটি জঙ্গলে তনুর মরদেহ পাওয়া যায়। পরে তার বাবা ইয়ার হোসেন অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে কুমিল্লার কোতয়ালী মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

roadmarch for Tanu

তনু হত্যার বিচার দাবিতে কুমিল্লা অভিমুখে গণজাগরণ মঞ্চের রোডমার্চ।

তনুর হত্যাকারীদের বিচার দাবিতে কুমিল্লায় অবরোধসহ নানা কর্মসূচি পালন করে তার সহপাঠীরা। ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তনুর হত্যাকারীদের বিচার দাবিতে সোচ্চার হয়েছে দেশের মানুষ।

ময়নাতদন্তে ধর্ষণের আলামত না পাওয়ায় এর সুষ্ঠু তদন্ত নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে গত ৭ এপ্রিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ে করে কয়েকটি ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা। ওই কর্মসূচি থেকেই ২৫ এপ্রিল অর্ধদিবস হরতালের ঘোষণা দেয় প্রগতিশীল ছাত্র জোট এবং সাম্রাজ্যবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্য।

তনুর মরদেহ উদ্ধারের পরদিন প্রথম ময়নাতদন্ত হয় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের মর্গে। গত ৪ এপ্রিল প্রথম ময়নাতদন্তের প্রকাশিত প্রতিবেদনে তনুর মৃত্যুর কারণ স্পষ্ট হয়নি। প্রতিবেদনে তনুর মাথার পেছনের জখমের কথা গোপন করা হয় এবং গলার নিচের আঁচড়কে পোকার কামড় বলে উল্লেখ করা হয়।

এনিয়ে বিতর্কের এক পর্যায়ে পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মেডিকেল বোর্ড গঠন করে দ্বিতীয় দফা ময়নাতদন্তের নির্দেশ দেয় আদালত। এরপর কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কামদা প্রসাদ সাহার নেতৃত্বে তিন সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গত ৩০ মার্চ দ্বিতীয় দফা ময়নাতদন্ত করে। কিন্তু দ্বিতীয় দফা ময়নাতদন্তের পর দুই মাসের বেশি সময় অতিক্রম হলেও এখনও এর প্রতিবেদন জমা দেয়নি মেডিকেল বোর্ড। প্রতিবেদন জমা দেওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত করে কিছু বলছেন না মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা।

অর্থসূচক/পিএ/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ