প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের শেয়ারে লকইন কতদিন থাকে?
শুক্রবার, ১১ জুলাই, ২০২০
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » আপনার জিজ্ঞাসা

প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের শেয়ারে লকইন কতদিন থাকে?

বুকবিল্ডিং পদ্ধতির প্রাথমিক গণপ্রস্তাবে (আইপিও) প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের জন্য ৫০ শতাংশ শেয়ার সংরক্ষিত থাকে। সংশ্লিষ্ট আইনে অবশ্য এদেরকে যোগ্য বিনিয়োগকারী (Eligible Investor) নামে অভিহিত করা হয়েছে। এই শেয়ারে কতদিন লকইন থাকে, কবে তা বিক্রি উপযোগী হয় তা জানতে চেয়েছেন ঢাকার পল্লবীর আব্দুল লতিফ, ময়মনসিংহের ছাবেরুল ইসলাম, ঢাকার মিরপুরের আহসানুল হক এবং নারায়ণগঞ্জের নাজমুল হাসান। তারাসহ কৌতুহলী অন্য বিনিয়োগকারীদের জন্য অর্থসূচক নিচের প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে।

বর্তমানে কোনো কোম্পানিকে আইপিওতে আসতে হলে পাবলিক ইস্যু রুল-২০১৫ এর আওতায় আসতে হয়। আইন অনুযায়ী, বুক বিল্ডিং পদ্ধতির আইপিওর ৫০ শতাংশ শেয়ার প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের জন্য সংরক্ষিত থাকে। বাকী শেয়ারের মধ্যে ১০ শতাংশ শেয়ার মিউচ্যুয়াল ফান্ডের জন্য। এছাড়াও সাধারণ বিনিযোগকারীদের ৩০ শতাংশ, যার মধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের কোটাও আছে, আর অনিবাসী বাংলাদেশিদের (এনআরবি) জন্য ১০ শতাংশ শেয়ার বরাদ্দ থাকে।

পাবলিক ইস্যু রুল-২০১৫ এ পুরো শেয়ারের লকইন সম্পর্কে কিছু বলা নেই। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর প্রাপ্য শেয়ারের ৫০ ভাগের উপর লকইন থাকবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এই ৫০ ভাগের মধ্যে ২৫ শতাংশের উপর ৩ মাস এবং বাকী ২৫ শতাংশের উপর ৬ মাস লকইন প্রযোজ্য।

উল্লেখ, লকইন হচ্ছে এক ধরনের নিষেধাজ্ঞা। কোনো শেয়ারের উপর লকইন থাকলে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত ওই শেয়ার বিক্রি, হস্তান্তর, উপহার দেওয়া ইত্যাদি করা যায় না।

পাবলিক ইস্যু রুল-২০১৫ বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর প্রাপ্য শেয়ারের ৫০ ভাগের উপর কোনো লকইন থাকছে না। অর্থাৎ প্রথমদিনই ওই শেয়ার বিক্রি করতে পারে তারা।

  • পুঁজিবাজার সংক্রান্ত আইনের ব্যাখ্যাসহ নানা বিষয়ে আপনিও প্রশ্ন পাঠাতে পারেন আমাদের কাছে। উত্তর দিতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো আমরা। তবে দয়া করে কোনো শেয়ারের কেনা-বেচার পরামর্শ বা দাম সম্পর্কিত প্রশ্ন করবেন না…সম্পাদক
এই বিভাগের আরো সংবাদ