ইউপি নির্বাচনে ষষ্ঠ ও শেষ ধাপের ভোটগ্রহণ চলছে
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ইউপি নির্বাচনে ষষ্ঠ ও শেষ ধাপের ভোটগ্রহণ চলছে

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের শেষ ধাপের ভোটগ্রহণ চলছে। আজ শনিবার সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়। একটানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে। নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ব্যবস্থাপনায় ষষ্ঠ ধাপে আজ দেশের ৪৬ জেলার ৯২ উপজেলার ৬৯৮টি ইউপিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে নির্বাচনী এলাকায় সব ধরনের প্রচারণা বন্ধ করা হয়েছে। মাঠে নেমেছে পুলিশ, বিজিবি, র‌্যাবসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বিভিন্ন বাহিনী। গতকাল শুক্রবার ব্যালট পেপার ও নির্বাচনী সরঞ্জাম কেন্দ্রে পৌঁছে দিয়েছেন নির্বাচনী কর্মকর্তারা।UP Election

৬ হাজার ২৮৭টি ভোট কেন্দ্রে এক কোটি ১০ লাখের বেশি ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন আজ। নির্বাচনী এলাকার সব ধরনের সরকারি প্রতিষ্ঠানে আজ সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

শেষ ধাপের নির্বাচনে ৬৯৮ উপজেলার মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৩ হাজার ২২৩ জন, সাধারণ সদস্য পদে ২৫ হাজার এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৫ হাজারের বেশি প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের ২৫ জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া চট্টগ্রামে মিরসরাইয়ের করেরহাট ও কুমিল্লার মুরাদনগরের রামচন্দ্রপুর ইউপির সব পদের প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

নির্বাচন কমিশন বলছে, আগের চার ধাপের তুলনায় এবার ‘তুলনামূলকভাবে ভালো’ নির্বাচন আশা করছে তারা। সেই লক্ষ্যে সব ধরনের প্রস্তুতিই নেওয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ইউপিতে প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীদের কারণেই গোলযোগ বেশি হচ্ছে। দলের মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার পর অনেকেই ‘যে কোনো মূল্যে’ জয় পেতে মরিয়া হওয়ায় সহিংসতা বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে দলগুলোকেও তাদের প্রার্থী-সমর্থকদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে ব্যর্থতার দায় নিতে হবে।

প্রসঙ্গত, গত ২২ মার্চ থেকে ইউপি নির্বাচন শুরু হয়। এখন পর্যন্ত পাঁচ ধাপে ৩ হাজার ৩৮৬টি ইউপিতে ভোট নেওয়া হয়েছে। পাঁচ ধাপেই বিভিন্ন জায়গায় কেন্দ্র দখল করে প্রকাশ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে ব্যালট পেপারে সিল মারা, ব্যালট পেপার ও ব্যালট বাক্স ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। সর্বশেষ গত ২৮ মে পঞ্চম ধাপের নির্বাচনের দিন ১০ জনের প্রাণহানি ঘটেছিল। উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গতকাল শুক্রবার পর্যন্ত সহিংসতায় ১০৩ জন নিহত হয়; কয়েক হাজার মানুষ আহত হয়েছেন।

অর্থসূচক/পিএ/বিএন/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ