নিবন্ধনের পরেও বন্ধ এয়ারটেল সিম, ভোগান্তিতে গ্রাহক
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

নিবন্ধনের পরেও বন্ধ এয়ারটেল সিম, ভোগান্তিতে গ্রাহক

বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে মোবাইল সিম পুনরায় নিবন্ধনের  সময় শেষ হয়েছে গতকাল ৩১মে রাত ১২টায়। সরকারের ঘোষণা অনুসারে উক্ত সময়ের পরে সকল অনবিন্ধিত সীম বন্ধ হয়ে যাওয়ার কথা। বুধবার বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) জানিয়েছে অনিবন্ধিত সিম বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু করেছে সংস্থাটি।

ছবি সংগৃহীত

ছবি সংগৃহীত

তবে নিবন্ধন করার পরেও আজ ১ জুন থেকে বন্ধ রয়েছে এয়ারটেলের সিম।

গ্রাহকদের অভিযোগ, তারা বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে মিস নিবন্ধন করালেও আজ থেকে তাদের নম্বর নিষ্ক্রিয় হয়ে আছে। মুঠোফোনে এয়ারটেল সিমের নেটওয়ার্কও ফুল দেখাচ্ছে। কিন্তু এয়ারটেল থেকে কোনো নম্বরে কল করা যাচ্ছে না। কোনো নম্বর থেকে আসছে না ইনকামিং কলও।

এয়ারটেলের গ্রাহক এমাদ চৌধুরী গতকাল শেষ দিন বিকেলে তিনি তার সিমটি বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধন করিয়েছেন। তার নম্বরে নিবন্ধনের নিশ্চিতকরণ এসএমএসও আসে। আসে বায়োমেট্রিক নিবন্ধনের জন্য ঘোষিত বিশেষ প্যাকেজও।

এমাদ জানান, তিনি গতকাল ১০০ টাকার টকটাইমের একটি ফ্রি প্যাকেজ পেয়ে তার  থেকে কথাও বলেছেন। কিন্তু বুধবার সকাল থেকে তিনি দেখেন তার সিমটি চালু থাকলেও সেখান থেকে কোনো কল বা এসএমএস যাচ্ছেনা বা আসছেন।

এই অবস্থায় তিনি বেশ হয়রানির মধ্যে পড়েছেন বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, সরকারের নির্দেশ মেনে সিমের নিবন্ধন করিয়েছি। কিন্তু তাতে কী লাভ হলো ? এখন আমি যোগাযোগের বাইরে। কেই আমাকে পাচ্ছে না। আমিও কাউকে কল করতে পারছি না।  তাহলে সময় নষ্ট করে, কষ্ট সহ্য করে সিম নিবন্ধন করিয়ে লাভ কী হল?

ঘটনাটি কেবল কয়েকজন গ্রাহকের ক্ষেত্রে ঘটেছে কিনা, বা নিবন্ধনে এজেন্টদের কোনো ত্রুটির কারণে হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদক দেশের বিভিন্ন স্থানে ১৫ জন এয়ারটেলের গ্রাহকের সাথে যোগাযোগ করেন।

সরেজমিন অনুসন্ধানে দেখা যায়,  ওই ১৫ জন গ্রাহক দেশের বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে ভিন্ন ভিন্ন সময়ে তাদের এয়াটেল সিমের নিবন্ধন করিয়েছেন।

ফরিদপুরের নগরকান্দার এক গ্রাহক পারুল আক্তার জনান, তিনি তার সিমের নিবন্ধন করিয়েছেন গত এপ্রিল মাসে। তখন তার নম্বরে নিবন্ধনের নিশ্চিতকরণ এসএমএসও আসে। কিন্তু আজ সকাল থেকে তিনি দেখেন তার নম্বরে কোনো কল আসছেও না, যাচ্ছেও না। এই অবস্থায় তিনি সকলের সাথে যোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে আছেন।

সকালে এ বিষয়ে পল্টনের এক নিবন্ধন এজেন্ট আল-আমিন টেলিকমে জানতে চাওয়া হয়, তাদের নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় কোনো ত্রটির কারণে এমন হয়েছে কিনা?

আলামিন টেলিকম থেকে জানানো হয়, তাদের নিবন্ধন প্রত্রিয়ার কোনো ত্রুটির কারণে এমন হয়নি। বরং এয়ারটেলের কোনো যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে এমন হয়ে থাকতে পারে। কিংবা বিটিআরসির সাথে এয়াটেলের কোনো যোগাযোগ গ্যাপের কারণে এমন হতে পারে।

তবে বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে এয়ারটেলে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে দেখা হয় তাদের ওয়েব সাইটে দেওয়া কোনো নম্বরেই কল যাচ্ছে না।

এয়ারটেল বাংলাদেশের চিফ সার্ভিস অফিসার রুবাবা দৌলা মতিনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও মুঠোফোনে তিনি কল কেটে দেন। পরে বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চেয়ে এসএমএস দেওয়া হলেও কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ, বিটিআরসির হিসাব অনুসারে দেশে বর্তমানে ১ কোটি ৩ লাখের বেশি এয়াটেল গ্রাহক আছেন।

টি

এই বিভাগের আরো সংবাদ