'ইংলিশ পারি না, ক্রিকেটের ভাষা বুঝি'
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘ইংলিশ পারি না, ক্রিকেটের ভাষা বুঝি’

আমি ইংলিশ খুব বেশি পারি না। সবাই আমার কাছ থেকে বাংলা শিখতে চায়। সবাই আমার প্রশংসা করে। তবে ক্রিকেটের কিছু ভাষা পারি।

গতকাল সোমবার রাত পৌনে ১১টার দিকে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এমন সহজ স্বীকারোক্তি দিলেন ক্রিকেটের তরুণ সেনসেশন মুস্তাফিজুর রহমান।

দীর্ঘ এক মাসের বেশি সময় ধরে ভারতের বিভিন্ন প্রদেশের মাঠ ও প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়দের মন কাপিয়ে অবশেষে দেশে ফিরেছেন মুস্তাফিজুর রহমান। হায়দ্রাবাদের হয়ে আইপিএল শিরোপা জিতেই ঘরে ফিরলেন তিনি। মুস্তাফিজুর রহমানকে স্বাগত জানাতে গতকাল রাতেই বিমানবন্দরে হাজির হন ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয় এবং বিসিবির কর্মকর্তারা। মাথায় গোলাপের পাগড়ি এবং পুষ্পমাল্য দিয়ে বরণ করা হয় তরুণ পেস বোলারকে।

Mustafizur Rahman

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মুস্তাফিজকে স্বাগত জানান ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়।

ক্রিকেট প্রেমীদের ভালোবাসায় সিক্ত মুস্তাফিজ বলেন, আমি ইংলিশ খুব বেশি পারি না। সবাই আমার কাছ থেকে বাংলা শিখতে চায়। সবাই আমার প্রশংসা করে। তবে ক্রিকেটের কিছু ভাষা পারি।

তিনি বলেন, আমি এখনও ছোট; আমি আরও অনেক কিছু শিখতে চাই। আইপিএলে বিভিন্ন দেশের অনেক ক্রিকেটার ছিল। তাদের থেকে অনেক কিছুই শিখেছি। সামনে অন্য কোনো সুযোগ পেলে আরও ভালো কিছু করে দেখানোর চেষ্টা করবো।

দ্য ফিজ বলেন, রিভার্স সুইংয়ের কৌশল শিখতে পাকিস্তানের পিএসএলে খেলার ইচ্ছে ছিল। তবে চোটের কারণে সেই টুর্নামেন্ট খেলতে পারিনি। আইপিএলে অনেক কিছু শিখেছি।

ইংল্যান্ডে এবং অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে নতুন কন্ডিশনে নতুন কিছু শেখার সুযোগ এসেছে এই ফাস্ট বোলারের সামনে। তার ডাক পড়েছে ইংলিশ কাউন্টি দল সাসেক্সে। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ফাইনাল ম্যাচের আগে পায়ে একটু ব্যথা ছিল। আমি কাল ক্রিকেট বোর্ডে যাব; ফিজিওকে দেখাব। বোর্ডে কথা বলার পর ইংল্যান্ড সফরের বিষয়ে জানা যাবে।

ভারতে থাকাকালে দেশ এবং দেশের মানুষকে অনেক মিস করেছেন বলে জানিয়েছেন মুস্তাফিজ।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আবির্ভাবের বছরেই বিস্ময় বালকে পরিণত হয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান। প্রথমবার আইপিএলে গিয়েও নিজের প্রতিভা ও সামর্থ্যের ঝলক দেখিয়েছেন তিনি। স্লোয়ায় ও কাটার মিশ্রিত জাদুকরী বোলিং দিয়ে আইপিএল মাতিয়েছেন এই বামহাতি ফাস্ট বোলার। প্রয়োজনের সময় ইয়র্কারের ব্যবহার করে পরিণত ক্রিকেট মস্তিষ্কের প্রমাণও দিয়েছেন দ্য ফিজ।

হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটের কারণে আইপিএলে একটি ম্যাচ খেলতে পারেননি মুস্তাফিজ। ১৬ ম্যাচে ৬১ ওভার বল করে মাত্র ৪২১ রান দিয়ে ১৭ উইকেট নিয়েছেন তিনি। ওভার প্রতি তার গড় ব্যয় মাত্র ৬ দশমিক ৯০ রান। কমপক্ষে ২০ ওভার বল করেছেন এমন বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে কিপটে ছিলেন এই বামহাতি ফাস্ট বোলার।

খেলার মাঠে সফলতার পাশাপাশি ক্রিকেট প্রেমীদের মনও জয় করেছেন মুস্তাফিজুর রহমান। উদীয়মান খেলোয়াড় হিসেবে আইপিএলের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের ভোটাভুটিতে ৮৩ দশমিক ২ শতাংশ ভোট হায়দ্রাবাদের হয়ে অংশ নেওয়া এই খেলোয়াড়। এ প্রতিযোগিতায় নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর চেয়ে অনেক বেশি এগিয়ে ছিলেন দ্য ফিজ। সেরা উদীয়মান খেলোয়াড় হিসেবে দ্বিতীয় স্থানে থাকা বেঙ্গালুরুর লোকেশ রাহুল ৬ দশমিক ৫ শতাংশ এবং তৃতীয় স্থানে থাকা মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের ক্রুনাল পান্ডিয়া ৩ দশমিক ৭ শতাংশ ভোট পেয়েছেন।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ