তবুও দাম বাড়ছে!
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » পণ্যবাজার

তবুও দাম বাড়ছে!

বাংলাদেশের বড় পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জের আমদানিকারক ও আড়তদারেরা জেলা প্রশাসককে জানিয়েছিলেন- রোজায় ভোগ্যপণ্যের দাম বাড়বে না। কিন্তু  তার আগেই খুচরা বাজারের চিত্র দিন দিন পাল্টে যাচ্ছে। দাম বাড়ছে অস্বাভাবিকহারে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, বাংলাদেশ ট্রেডিং কর্পোরশনের (টিসিবি) পণ্য পাচ্ছে হাতে গোনা কয়েকজন। যার ফলে বাজারের ওপর চাপ প্রায় আগের মতোই আছে। এতে করে ভোগ্যপণ্যের দাম কমছে না বরং বেড়েই চলেছে। বিশেষ করে চিনি ও ছোলার দাম।

ছবি সংগৃহীত

ছবি সংগৃহীত

চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউস সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত এ বন্দর দিয়ে ছোলা ঢুকেছে ৭৫ হাজার টন। বিপরীতে দেশের বছরে ছোলার চাহিদা ৬০ হাজার টন। অন্যদিকে, বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাবে গত জানুয়ারি থেকে এপ্রিলে চিনি আমদানিতে এলসি খোলা হয়েছে ৫ লাখ ৮১ হাজার ৩৮০টি। আলোচ্য সময়ে এলসি নিষ্পত্তি হয়েছে ৬ লাখ ২৩ হাজার ৫২৬টি। এ ৪ মাসে প্রতি কেজি চিনির গড় আমদানি মূল্য পড়েছে ২৬ টাকা।

দুইটি পণ্যের আমদানি তথ্য মিলিয়ে দেখলে দাম বাড়ার কথা না কিন্তু তবু দাম বাড়ছে। কেন দাম বাড়ছে জানতে চাইলে মেসার্স শাহমুছা ট্রেডার্সের মালিক মোহাম্মদ সেলিম জানান, দাম আমরা বাড়াচ্ছি না। আসলে খুচরা বাজারে দাম বাড়ছে। তাদের পরিবহন খরচকে কেন্দ্র করেই এটা হতে পারে।

খাতুনগঞ্জের খুচরা বাজার, কাজীর দেওরি কাঁচাবাজার, বহদ্দারহাট কাঁচাবাজার, কর্ণফুলী মার্কেট, চকবাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি কেজি চিনি বিক্রি হচ্ছে ৪৭ টাকা থেকে ৫৮ টাকা দরে। যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ৪০ টাকার কাছাকাছি। আর বার্মা থেকে আমদানি করা ছোলা বিক্রি হচ্ছে প্রতিকেজি ৮৬ টাকা থেকে ৯৭ টাকা। যা সপ্তাহ আগে ছিল ৮৩ টাকা করে। তবে রসুন আর পেঁয়াজের দাম সামান্য কমেছে।

টিসিবি এই পণ্য বিক্রি করছে প্রতি কেজি ছোলা ৭০ টাকা, চিনি (দেশি) ৪৮ টাকা, মসুর ডাল ৯০ টাকা, সয়াবিন তেল প্রতি লিটার ৮০ এবং খেজুর প্রতি কেজি ৯০ টাকা দরে।

কাজীর দেউরি কাঁচা বাজারে আলাপ হয় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা নাজিম উল্লাহ হেলালীর সাথে। তিনি বলেন, সরকার বলছে, ভোগ্যপণ্যের দাম বাড়বে না। কিন্তু বাস্তবে দেখা যাচ্ছে ভিন্ন চিত্র। সরকারের উচিৎ দ্রুত বাজার মনিটরিং করা। না হলে রোজা শুরু হতে হতে ভোগ্যপণ্য আরো লাগামহীন হয়ে যাবে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক সরকারি কর্মকর্তা বলেন, ২/৩ দিনের মধ্যে বাজার মনিটরিং এ নামবে সরকার।

অর্থসূচক/সুমন/শাহীন

এই বিভাগের আরো সংবাদ