সিএসই’র কার্যক্রম তদারকির জন্য পাঁচ কমিটি

CSE
সিএসই লোগো

CSEডিমিউচ্যুয়ালাইজেশন আইনানুসারে নতুন পরিচালনা পর্ষদের দ্বিতীয় সভা সম্পন্ন করেছে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই)। সভায় ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশন পরবর্তী স্টক এক্সচেঞ্জের কার্যক্রম তদারকি করার জন্য পাঁচটি পৃথক কমিটি গঠন করা হয়েছে। সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বুধবার সিএসই ঢাকার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত পর্ষদ সভায় সকল সদস্যদের সম্মতিক্রমে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশন পরবর্তী সিএসই’র এটাই প্রথম কমিটি গঠন।

গঠিত কমিটিগুলো হলো- নোমিনেশন অ্যান্ড রিমিউনিরেশন কমিটি, রেগুরেটরি অ্যাফেয়ার্স কমিটি, অডিট অ্যান্ড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট কমিটি, আপিল কমিটি এবং কনফ্লিক্ট মিটিগেশন কমিটি।

জানা গেছে, গঠিত এ পাঁচটি কমিটির মধ্যে প্রত্যেকটির সদস্য সংখ্যা তিন থেকে পাঁচ জন করে রাখা হয়েছে। প্রতিটি কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে একজন করে স্বতন্ত্র পরিচালককে রাখা হয়েছে।  এছাড়াও প্রত্যেক কমিটিতে সিএসই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ সাজিদ হোসেন রয়েছেন।

নোমিনেশন অ্যান্ড রিমিউনিরেশন কমিটির চেয়ারম্যান হলেন- সফিউল ইসলাম। এছাড়াও আইসিএবি’র সভাপতি শওকত হোসেন, নাসিরউদ্দিন চৌধুরী ও শেয়ারহোল্ডার পরিচালক হিসাবে আছেন সালমান ইস্পাহানি।

রেগুরেটরি অ্যাফেয়ার্স কমিটির চেয়ারম্যান হলেন-মাঈনুল ইসলাম মাহমুদ। অন্য সদস্যরা হলেন, অধ্যাপক মমতাজ ও অধ্যাপক ড. আইয়ুব ইসলাম।

অডিট অ্যান্ড রিস্ক ম্যানেজমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান হলেন- আইসিএবি’র সভাপতি শওকত হোসেন। এ কমিটিতে আরও রয়েছেন, সফিউল ইসলাম, অধ্যাপক ড. আইয়ুব ইসলাম ও শেয়ারহোল্ডার পরিচালক হলেন মহি উদ্দিন।

আপিল কমিটির চেয়ারম্যান হলেন- অধ্যাপক মমতাজ। অন্য সদস্যরা হলেন, সফিউল ইসমলাম, অধ্যাপক ড. আইয়ুব ইসলাম,আইসিএবি’র সভাপতি শওকত হোসেন ও শেয়ারহোল্ডার পরিচালক খায়রুল আনাম।

এ ছাড়া কনফ্লিক্ট মিটিগেশন কমিটির চেয়ারম্যান হলেন- নাসিরউদ্দিন চৌধুরী। এ কমিটিতে রয়েছেন অধ্যাপক ড. আইয়ুব ইসলাম, সফিউল ইসলাম ও শেয়ারহোল্ডার পরিচালক শামসূল ইসলাম।

এ বিষয়ে সিএসই’র সভাপতি সৈয়দ সাজিদ হোসেন অর্থসূচককে বলেন, আজকের পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে ডিমিউচ্যুয়ালাইজেশন আইন অনুযায়ী পাঁচটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রত্যেক কমিটিকে তাদের দায়িত্ব ভাগ করে দেওয়া হয়েছে। তারা সে ভাবেই দায়িত্ব পালন করবে।

জিইউ