২১শে ফেব্রুয়ারি উদযাপনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন

21 ফেব্রুয়ারিমহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক  মাতৃভাষা দিবস ২০১৪ উদযাপনের সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে অমর একুশে উদযাপন কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটি। এ ব্যাপারে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছেন তারা। বুধবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পুরাতন সিনেট ভবন অডিটরিয়ামে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

লিখিত বক্তব্যে ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন,  মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০১৪ এর শৃঙ্খলা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশ বজায় রাখার স্বার্থে দোয়েল চত্বর থেকে কোনো প্রকার ব্যানার, ফেস্টুন বা ফুলের তোড়া নিয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার বা শহীদ দিবস উদযাপনের কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষের দিকে প্রবেশ করা যাবে না।

তিনি বলেন, রাষ্ট্রাচার অনুযায়ী একুশের প্রথম প্রহরে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ শেষ হলে একুশের ঘোষণা মঞ্চ থেকে মাইকে আমন্ত্রণ জানানোর পর জগন্নাথ হল প্রান্ত থেকে অপেক্ষমান সর্বসাধারণ শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য শহীদ মিনার বেদী অভিমুখে অগ্রসর হবেন।

সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দোয়েল চত্বর থেকে কোনো প্রকার ব্যানার, ফেস্টুন বা ফুলের তোড়া নিয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার  বা কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষের দিকে প্রবেশ না করার এবং ঘোষণা মঞ্চ থেকে মাইকে আমন্ত্রণ জানানোর পূর্বে শ্রদ্ধা নিবেদনের উদ্দেশে জগন্নাথ হল প্রান্ত থেকে শহীদ মিনার বেদী অভিমুখী রাস্তা দিয়ে অগ্রসর হওয়া যাবে না।

এ সময় ঢাবি উপাচার্য বলেন, আমাদের জাতীয় চেতনার প্রতীক মহান একুশে ফেব্রুয়ারি। গৌরবগাঁথা এ দিবসটি উপলক্ষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও আজিমপুর কবরাস্তানে সর্বস্তরের জনসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের যাবতীয় অনুষ্ঠান প্রতিবছরই ঢাবি পালন করে আসছে। এ বছরও তার ব্যতিক্রম হবে না।

এ সময় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও আজিমপুর কবরস্থানে যাতায়াতের যে রুটম্যাপ প্রণীত হয়েছে তা যথাযথভাবে অনুসরণের আহ্বান জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. ফরিদ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার রেজাউর রহমান, জনসংযোগ অধিদপ্তরের পরিচালক জনাব আশরাফ আলী খান ও সিনেট ও সিন্ডিকেটের সদস্যরা।

এসএস/কেএফ