মানুষখেকো কুমিরের সন্ধান
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

মানুষখেকো কুমিরের সন্ধান

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার এক জলাভূমিতে মানুষখেকো তিনটি নাইল প্রজাতির কুমিরের সন্ধান মিলেছে। সম্প্রতি এদের ডিএনএ পরীক্ষার পর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন একদল বিশেষজ্ঞ।

ফ্লোরিডার এক জলাশয়ে সন্ধান পাওয়া তিনটি নাইল প্রজাতির কুমিরের মধ্যে একটি। ছবি: বিবিসি

ফ্লোরিডার এক জলাশয়ে সন্ধান পাওয়া তিনটি নাইল প্রজাতির কুমিরের মধ্যে একটি। ছবি: বিবিসি

আজ শনিবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এই প্রজাতির কুমির মানুষখেকো। সাধারণত এদের সাব-সাহারা আফ্রিকা অঞ্চলে দেখা যায়। ধারণা করা হচ্ছে, ওই অঞ্চলে এক বছরে ২০০ এর অধিক মানুষ মারা যাওয়ার জন্য প্রজাতিটির কুমিরই দায়ী।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফ্লোরিডায় এই প্রজাতির আরও কুমরি থাকতে পারে।

ফ্লোরিডা বিশ্ববিদ্যালয়ের সরীসৃপ প্রাণি বিশেষজ্ঞ কেনেথ ক্রিস্কো বলেন, এগুলো যুক্তরাষ্ট্রে কিভাবে পৌঁছেছে সে বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে এ কথা বলা যায় যে, সেগুলো আফ্রিকা থেকে সাঁতার কেটে আসতে পারে না।

এপিকে তিনি বলেন, কেউ অবৈধভাবে এগুলো এখানে নিয়ে আসে। কিন্তু নিয়ন্ত্রণে রাখতে না পেরে ছেড়ে দেয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০০৯, ২০১১ ও ২০১৪ সালে কুমিরগুলোর সন্ধান পাওয়া যায়। পরে তাদের ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত হওয়া গেছে সেগুলো নাইল প্রজাতির। নাইল প্রজাতির কুমির ২০ ফুট পর্যন্ত লম্বা হতে পারে। যা সাধারণ স্থানীয় কুমিরের চেয়ে তুলনামূলক বেশ বড়। এদের প্রধান খাদ্য হচ্ছে চিংড়ি, মাছ, পোকামাকড়, পাখি ও স্তন্যপায়ী প্রাণি (মানুষসহ)।এছাড়া তারা গবাদিপশুও খেয়ে থাকে।

তাই ফ্লোরিডার দক্ষিণাঞ্চলীয় এভারগ্লেডস জলাভূমিতে আফ্রিকান প্রজাতিটির বংশবৃদ্ধি ঘটলে রাজ্যের বাস্তুসংস্থানের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন ফ্লোরিডা বণ্যপ্রাণি বিশেষজ্ঞরা।

অর্থসূচক/ডিএইচ

এই বিভাগের আরো সংবাদ