বরেন্দ্র জাদুঘর সংস্কারে অনুদান ঘোষণা দিলেন মজীনা

mozina

mozinaরাজশাহী মহানগরীতে বরেন্দ্র জাদুঘর আধুনিকায়ন করতে আরও ৮৫ হাজার ডলার অনুদান দেওয়ার ঘোষণা দিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান মজীনা।

বুধবার বেলা ১১টায় জাদুঘরটির সংস্কারকাজের ও সংরক্ষণকৃত গ্যালারির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনকালে রাষ্ট্রদূত এ ঘোষণা দেন।

উপমহাদেশের শ্রেষ্ঠ এবং দেশের প্রথম এই বরেন্দ্র গবেষণা জাদুঘরের উন্নয়নে এর আগের ৯৫ হাজার ডলার সহায়তার সাথে জাদুঘরের বাহ্যিক উন্নয়নে তিনি এই অতিরিক্ত অর্থ প্রদানের ঘোষণা দেন।

জাদুঘরের সংস্কার কাজের উদ্বোধনী বক্তৃতায় ড্যান মজিনা বলেন, ‘আমি বাংলাদেশের ৬৪টি জেলার সব ক’টি ঘুরে দেখার আকাঙ্খায় সাতক্ষীরা থেকে সিলেট, টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া পর্যন্ত সবখানে ঘুরে বেড়িয়েছি। আমি যেখানেই যাই সবখানেই একই জিনিস দেখি তাহলো এই দেশটি সত্যিকার অর্থে  কতটা সমৃদ্ধ, কতটা আশীর্বাদপুষ্ট। আমি সমৃদ্ধ প্রাকৃতিক  সম্পদ দেখি। আমি চমৎকার মানুষ দেখি, আর আমার মতে তারা বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ। আর আমি বাংলাদেশের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস ও সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য দেখি। এখানকার মতো আর কোথাও এই ঐতিহ্যের এত নিদর্শন দেখা যায় না। বরেন্দ্র গবেষণা জাদুঘরে যেখানে ২ হাজার বছরেরও পুরোনো বাংলাদেশের ঐতিহ্যের নিদর্শনের চিহ্ন পাওয়া যায়। বিশ্বব্যাপী অমূল্য হিসেবে আখ্যায়িত পুরাতাত্ত্বিক বস্তুতে পরিপূর্ণ এই জাদুঘরটি একটি চমকপ্রদ স্থান।

জাদুঘরের উন্নয়নে ৮৫ হাজার  ডলার অনুদান প্রদানের কথা উল্লেখ করে মার্কিন এই রাষ্ট্রদূত বলেন, আমি আনন্দিত আমি গর্বিত যে জাতির অমূল্য ইতিহাসের নিরাপত্তা প্রদানে আমেরিকা  বাংলাদেশের সঙ্গে অংশীদারিত্ব  করেছে। তিনি আরো বলেন, এর বাহ্যিক সংস্কার কাজের ভেতর আরও যে বিষয়গুলো থাকছে  তা হল, সীমানা প্রাচীর, বিদ্যুৎ  সরবরাহের স্থান, গার্ড রুম, টিকেট কাউন্টার, ভবনের  বাইরের এলাকা এবং আভ্যন্তরীণ আঙ্গিনার সংস্কার যেখানে বৌদ্ধস্তুপ ও হস্তণির্মিত বস্তুগুলো রয়েছে। জাদুঘরটির সংগ্রহশালার  সুরক্ষা ও জাদুঘরটিকে একবিংশ শতাব্দীর মানে উন্নীত করার ক্ষেত্রে এই অনুদান (৮৫ হাজার ডলার) অনুদান সহায়তা করবে। আমেরিকান ও বাংলাদেশীদের মধ্যে দৃঢ় বন্ধন ও এই দুই দেশের মধ্যকার চিরস্থায়ী বন্ধুত্বের অনেকগুলো দিকের একটি হল এই সাংস্কৃতিক অংশীদারিত্ব।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মিজানউদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী সারোয়ার জাহান, বরেন্দ্র জাদুঘরের পরিচালক অধ্যাপক সুলতান আহমেদ ও অধ্যাপক এমিরেটাস এবিএম হোসেন। পরে ড্যান মজীনা জাদুঘর ঘুরে দেখেন। এ সময় সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল তাঁর সঙ্গে ছিলেন।

সাকি/