সুইফটের ওপর আস্থাহীন মার্কিন ব্যাংকগুলো
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক

সুইফটের ওপর আস্থাহীন মার্কিন ব্যাংকগুলো

বাংলাদেশ আর ভিয়েতনামের ব্যাংকে সুইফট মেসেজিং নেটওয়ার্ক হ্যাকের মাধ্যমে টাকা চুরির ঘটনায় সারা বিশ্বেই তোলপাড় শুরু হয়েছে। হচ্ছে নানা আলোচনা-সমালোচনা।কেউ বলেছে সুইফটের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় গোলমাল আছে আবার কেউ বলছে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের দায়ই বেশি।

swift

সুইফটের নিরাপত্তা ব্যবস্থার সমালোচনা করেছে খোদ যুক্তরাষ্ট্রও। বার্তাসংস্থা রয়টার্সের এক খবরে বলা হয়েছে, অবৈধভাবে অর্থ পাচারের চেষ্টা চালানোর ঘটনায় সুইফটের নিরাপত্তা খুঁটিয়ে পরীক্ষা করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বড় ব্যাংকগুলো।

তাদের বক্তব্য এভাবে দুইটি ব্যাংক থেকে বিপুল টাকা চুরি যাওয়ার পর সুইফটের ওপর চোখবন্ধ করে ভরসা রাখা যায় না। তবে বিষয়টি নিয়ে সুইফট কতৃপক্ষের কোনো মতামত জানতে পারেনি রয়টার্স।

তবে ব্যাংকগুলো জরুরিভাবে বিষয়টি নিয়ে সুইফটের সাথে কথা বলতে চায়। কেননা তারা চায় ব্যাংকের আরও নিরাপত্তা। আর তা সুইফট নিশ্চিত করতে পারবে কী না তা নিশ্চিত হতেই সংস্থাটির সাথে বসতে চায় ব্যাংকগুলো।

প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়ে, পরবর্তী কোনো আক্রমণের ঝুঁকি যাতে কমে আসে, সেজন্য সুইফট প্রযুক্তিগত কোনো সমাধান নিয়ে আসবে বলেও আশা করছে যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি ব্যাংক।

প্রসঙ্গত, গত ফেব্রুয়ারিতে সুইফট মেসেজিং সিস্টেমের মাধ্যমে ভুয়া বার্তা পাঠিয়ে ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউ ইয়র্কে রক্ষিত বাংলাদেশের রিজার্ভের আট কোটি ১০ লাখ ডলার ফিলিপাইনে সরিয়ে নেওয়া হয়, যাকে বিশ্বের অন্যতম বড় সাইবার চুরির ঘটনা বলা হচ্ছে।

ওই ঘটনায় বাংলাদেশ ব্যাংকের গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান সাবেক গভর্নর মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন রিজার্ভ চুরির ঘটনায় মূলত সুইফটকে দায়ী করেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের দায়ের করা মামলার তদন্তে থাকা বাংলাদেশ পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগও বলেছে, সুইফটের টেকনিশিয়ানদের ‘অবহেলার কারণেই’ বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সুইফট সার্ভার হ্যাকারদের সামনে অনেক বেশি উন্মুক্ত হয়ে পড়ে।

তবে ওই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে কয়েকদিন আগে সুইফটের এক বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশ ব্যাংকসহ কোনো সদস্যের সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করা তাদের দায়িত্ব নয়। পরে বিশ্বজুড়ে সদস্য ব্যাংকগুলোতে চিঠি দিয়েও সুইফট একই কথা জানায়।

টি

এই বিভাগের আরো সংবাদ