জাতীয় পার্টির ৮ম জাতীয় সম্মেলন শুরু
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

জাতীয় পার্টির ৮ম জাতীয় সম্মেলন শুরু

জাতীয় পার্টির অষ্টম জাতীয় সম্মেলন শুরু হয়েছে। আজ শনিবার সকালে রাজধানীর ইনস্টিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে এ ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন করেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

সম্মেলনের সব প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। রাজনৈতিক দলের সম্মেলনে নেতৃত্ব নির্বাচনের বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ থাকলেও জাপার এবারের সম্মেলন কিছুটা ব্যতিক্রম। সম্মেলনের আগেই দলের সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান, কো-চেয়ারম্যান এবং মহাসচিব পদে নিয়োগ দিয়েছেন দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। ফলে এ সম্মেলনে শীর্ষ নেতৃত্বে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন হচ্ছে না।

Jatiyo party

জাতীয় পার্টির অষ্টম জাতীয় সম্মেলনের লোগো উন্মোচন।

তবে এবারের সম্মেলনকে শক্তি প্রদর্শনের অংশ বলে মনে করেন জাতীয় পার্টির শীর্ষ নেতা থেকে শুরু করে মাঠপর্যায়ের কর্মীরা। তাই একে ভিন্ন রূপ দিতে প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন দলের নেতার্মীরা। পাল্টাপাল্টি অবস্থান ও মতবিরোধের অবসান ঘটিয়ে এ সম্মেলন সফল করতে একযোগে কাজ করছেন তারা।

জাপা নেতারা জানান, অষ্টম জাতীয় কাউন্সিলের মাধ্যমে ঘুরে দাঁড়াতে চায় দলটি। এ সম্মেলনের মাধ্যমে জাতীয় পার্টি নতুনভাবে যাত্রা শুরু করবে। এই সম্মেলনের মাধ্যমে দলীয় গঠনতন্ত্রে প্রয়োজনীয় সংশোধনী আসতে পারে। এছাড়া সারাদেশ থেকে উপস্থিত কাউন্সিলরদের মতামতের ভিত্তিতে নেতা নির্বাচনসহ রাজনৈতিক এবং সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সম্মেলন উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে প্রচারে অংশ নিয়েছিলেন পার্টির কো-চেয়ারম্যান জি.এম. কাদের ও মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার। অপর দিকে এরশাদ ও রওশন এরশাদের মধ্যে বিরাজমান দ্বন্দ্বের নিরসন হওয়ায় সম্মেলন উপলক্ষে সক্রিয় ছিলেন দলটির সংসদ সদস্যরা। নিজ নিজ এলাকায় ব্যাপক প্রচারণা চালিয়েছেন তারা। তাদের প্রচেষ্টাকে সফল বলা চলে। সম্মেলনে যোগ দিতে ইতোমধ্যে সারাদেশ থেকে ঢাকায় এসেছেন দলটির প্রায় এক লাখ নেতাকর্মী।

সকাল ১০টায় সম্মেলন শুরুর পর প্রথম পর্বে দুপুর ২টা পর্যন্ত সাধারণ সম্মেলন এবং দুপুর ২টা থেকে মিলনায়তনে কাউন্সিলরদের নিয়ে মূল সম্মেলন হওয়ার কথা রয়েছে। দ্বিতীয় পর্বে জাতীয় পার্টির ৭৬টি সাংগঠনিক জেলা থেকে ১৯ হাজার ৭০০ কাউন্সিলর ঘরোয়া অধিবেশনে উপস্থিত থাকবেন।

H.M. Ershad

জাতীয় পার্টির ৮ম জাতীয় সম্মলনে পাশাপাশি আসনে চেয়ারম্যান হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ, সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ এবং মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার। ছবি: মহুবার রহমান

কাউন্সিলে বাংলাদেশে অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত, হাইকমিশনার ও বিভিন্ন দাতা সংস্থার প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে বলে জাতীয় পার্টি সূত্রে জানা গেছে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, বিএনপি, ওয়ার্কার্স পার্টি, জাসদ, বিকল্পধারা, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগসহ বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতাদের কাছেও আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার রুহুল আমীন হাওলাদার বলেন, সম্মেলনে সারাদেশ থেকে প্রায় এক লাখ নেতাকর্মী যোগ দেবেন। জেলা পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ, দলীয় সংসদ সদস্যরা রেকর্ড সংখ্যক উপস্থিতি হবে। সম্মেলনের মধ্য দিয়ে জাতীয় পার্টি আবারও ঘুরে দাঁড়াবে। বাংলাদেশের রাজনীতিতে জাতীয় পার্টি যে একটি ফ্যাক্টর, তা আমরা প্রমাণ করব।

জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাইদুর রহমান টেপা বলেন, এটি শুধু আমাদের পার্টির সম্মেলন নয়; এই দিন আমাদের শক্তি প্রদর্শনের দিন। সম্মেলনের মধ্য দিয়ে আমরা প্রমাণ করব, জাতীয় পার্টিই আগামীদিনের বাংলাদেশের রাজনীতির প্রধান শক্তি।

অপর প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুস সবুর বলেন, জাতীয় পার্টির সফল কাউন্সিল দেখে দেশবাসী বুঝতে পারবে, এইচ এম এরশাদের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টি আগামীতে ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য প্রস্তুত।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ