‘সুইফট টেকনিশিয়ানদের অবহেলার কারণেই রিজার্ভ চুরি’
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘সুইফট টেকনিশিয়ানদের অবহেলার কারণেই রিজার্ভ চুরি’

রিজার্ভ চুরির জন্য সুইফটের টেকনিশিয়ানদেরই দায়ী করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষ ও পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

নিউ ইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভ থেকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরির ঘটনার তদন্ত শেষে সিআইডির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জানান, বাংলাদেশ ব্যাংকের সুইফট মেসেজিং প্ল্যাটফরমের সঙ্গে নতুন ট্রানজেকশন সিস্টেম যুক্ত করার সময় সুইফটের টেকনিশিয়ানদের অবহেলার কারণেই হ্যাকাররা সাইবার আক্রমণের সুযোগ পেয়েছে।

সিআইডির অতিরিক্ত উপ-মহাপরিদর্শক শাহ আলমের বরাত দিয়ে রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, রিজার্ভ চুরির ঘটনার তিন মাস আগে বাংলাদেশ ব্যাংককে প্রথমবারের মতো ‘রিয়েল টাইম গ্রস সেটেলমেন্ট সিস্টেম’ এর সঙ্গে যুক্ত করেন সুইফটের টেকনিশিয়ানরা। ওই সময় তাদের অবহেলায় অনেকগুলো লুপহোল (ছিদ্রপথ) তৈরি হয়েছে। তাদের কাজের সময়ই বাংলাদেশ ব্যাংকের ঝুঁকি অনেক বেশি বেড়ে গেছে।

তিনি আরও জানান, ‘রিয়েল টাইম গ্রস সেটেলমেন্ট সিস্টেমে’ যুক্ত করতে নিরাপত্তা নিশ্চিতে যে প্রক্রিয়াগুলো সুইফট নির্ধারণ করে দিয়েছিল- তা সম্পূর্ণভাবে অনুসরণ করেননি সুইফটের টেকনিশিয়ানরা। ফলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সুইফট মেসেজিং প্ল্যাটফর্মে প্রবেশ সহজ হয়েছে।

BB Hacked

রিজার্ভ চুরি।

শাহ আলমের এই বক্তব্যের সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের কয়েকজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, ম্যাসেজিং সিস্টেমে দুর্বলতাগুলো দেখার দায়িত্ব সুইফটের। কিন্তু এই দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করেনি সুইফট কর্তৃপক্ষ।

বাংলাদেশ পুলিশের বরাত দিয়ে রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, সুইফট প্ল্যাটফর্মের সাইবার নিরাপত্তার জন্য ফায়ারওয়ালের পরিবর্তে সাধারণ সুইচ ব্যবহার করেছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বাংলাদেশের কর্তৃপক্ষের এসব অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সুইফটের প্রধান মুখপাত্র নাতাশা টেরান কোনো কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি বলে জানিয়েছে রয়টার্স। এমনকি বাংলাদেশ ব্যাংককে ‘রিয়েল টাইম গ্রস সেটেলমেন্ট সিস্টেম’ এর সঙ্গে যুক্ত করতে কোনো টেকনিশিয়ান পাঠানো হয়েছিল কি না- সে প্রসঙ্গেও কিছু বলেননি তিনি।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ