জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ প্রকল্পে বরাদ্দ ১৩০০ কোটি টাকা
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ প্রকল্পে বরাদ্দ ১৩০০ কোটি টাকা

৬টি আঞ্চলিক কেন্দ্রসহ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামোগত সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি ও কলেজ শিক্ষার মানোন্নয়নে ১ হাজার ৩০০ কোটি টাকার দুটি প্রকল্প গ্রহণ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন উপাচার্য ড. হারুন-অর-রশিদ।

গতকাল শুক্রবার বিকেলে সরকারি বিএম কলেজ অডিটোরিয়ামে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত বরিশাল বিভাগের কলেজ অধ্যক্ষদের সঙ্গে ‘জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালন ব্যবস্থা ও শিক্ষার মানোন্নয়ন’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় এ কথা জানান তিনি। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. হারুন-অর-রশীদের সভাপতিত্বে এ সভায় বিভিন্ন কলেজের ১৭০ জন অধ্যক্ষ অংশগ্রহণ করেন।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক। ছবি সংগৃহীত

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক। ছবি সংগৃহীত

তিনি বলেন, অবকাঠামোগত সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি ও কলেজ শিক্ষার মানোন্নয়নে এই উদ্যোগ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার মান বৃদ্ধিতে খুবই সহায়ক হবে।

উপাচার্য বলেন, বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ বিশ্ববিদ্যালয় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। উচ্চশিক্ষা ক্ষেত্রের দেশের শতকরা ৭০ শতাংশ শিক্ষার্থী এ বিশ্ববিদ্যলয়ে পড়াশুনা করে। বর্তমানে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ৬৮৫টি অনার্স ও মাস্টার্স কলেজ ও ৩৬৪টি বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠানসহ মোট ২১৯১টি কলেজ রয়েছে। সেগুলোতে ২১ লাখের বেশি শিক্ষার্থীর জন্য ৬০ হাজারের বেশি শিক্ষক রয়েছেন।

তিনি বলেন, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল, নদী-উপকূলীয় এলাকা, হাওড়, দুর্গম পাহাড় পর্যন্ত বিস্তৃত জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। দেশের লাখো অস্বচ্ছল পরিবারের সন্তানদের উচ্চশিক্ষার একমাত্র আশা-ভরসার স্থল এটি। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় না থাকলে এদের সিংহভাগই উচ্চ শিক্ষার সুযোগ পেত না।

ড. হারুন-অর-রশীদ বলেন, দেশের লাখ লাখ শিক্ষার্থীদের মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করা জরুরি, যাতে তারা দক্ষ ও যোগ্য মানবসম্পদ হিসেবে নিজেদের তৈরি করতে পারে। শিক্ষাজীবন শেষে তারা যেন দেশ ও জাতির উন্নয়ন এবং কল্যাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে সে লক্ষ্যে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়কে নতুন আঙ্গিকে গড়ে তোলার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ