দুই মেয়রের এক বছর পূর্তি: প্রত্যাশার চেয়ে প্রাপ্তি কম
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

দুই মেয়রের এক বছর পূর্তি: প্রত্যাশার চেয়ে প্রাপ্তি কম

মেয়র হিসেবে শপথ গ্রহণের এক বছর পূর্ণ করলেন ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের মেয়র। ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল নির্বাচনে জয়লাভের পর একই বছরের ৬ মে মেয়র হিসেবে শপথ নেন সাঈদ খোকন ও আনিসুল হক। নির্বাচনের আগে ও জয়লাভের পর অনেক পরিকল্পনা, উদ্যোগ ও আশার কথা শুনিয়েছেন তারা। বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, পরিচ্ছন্নতা, অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদসহ বিভিন্ন বিষয়ে দৃশ্যমান তৎপরতাও দেখিয়েছেন তারা। তবে প্রতিশ্রুতি এবং উদ্যোগের তুলনায় বাস্তবায়ন অনেক কম।

দুই সিটির ৯৩ ওয়ার্ডের বেশিরভাগ সড়কেরই বেহাল দশা। বিভিন্ন সংস্থার খোঁড়াখুঁড়ির ‘প্রতিযোগিতা’ সড়কের দুর্দশাকে দিন দিন বাড়িয়েই চলেছে। ফলে বরাবরের মতোই ভোগান্তিতে পড়ছেন নগরবাসী। বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় নতুন উদ্যোগের কথা বলা হলেও দৃশ্যমান তৎপরতা নেই। রাস্তা ও ফুটপাথের দখলও কমেনি। দখল হওয়া পার্ক ও খেলার মাঠ উদ্ধারেও সফলতা পাননি কেউই।

Anisul Hauque & Syeed Khokon

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হক এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন।

অবশ্য দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন সেক্টরে কাজ ও উন্নয়নের কথা জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র। নগরবাসীকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণে নিরন্তর কাজ হচ্ছে বলে দাবি করেছেন তারা। প্রত্যাশার তুলনায় পিছিয়ে থাকলেও কাজ এগিয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন দুইজনই। নগর উন্নয়নে বিভিন্ন প্রকল্পের কথাও জানালেন তারা। ভবিষ্যতে এসব প্রকল্পের সুফল নগরবাসী পাবেন বলে দাবি করেন দুই মেয়র।

২০১৫ সালের ৬ মে শপথ নিলেও ১০ মে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) দায়িত্ব নেন মেয়র আনিসুল হক। পরিচ্ছন্ন-সবুজ-আলোকিত ও মানবিক ঢাকা গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে নির্বাচনে অংশ নেন তিনি। তবে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী এখনও নগরজীবনে উল্লেখযোগ্য তেমন পরিবর্তন আসেনি। প্রত্যাশার বিপরীতে কাজ বুঝে নেওয়া ও প্রকল্প গ্রহণ করতেই সময় পার হয়েছে বেশি। তবু এই সময়ের মধ্যে অনেক উদ্যোগ নিয়েছেন মেয়র আনিসুল হক। তেজগাঁও ট্রাকস্ট্যান্ড সরানো, গাবতলী, কল্যাণপুর, মোহাম্মদপুরসহ উত্তরের বেশ কিছু সড়ক যানজটমুক্তকরণ ও অবৈধ বিলবোর্ড অপসারণ করেছেন তিনি। তবে এখনও শতভাগ সুফল আসেনি। উল্টো রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ির কারণে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে নগরবাসীকে।

গত এক বছরে কয়েকবার পদক্ষেপ নিয়েও সরানো যায়নি রাজধানীর ফুটপাতের দোকানগুলো।

গত এক বছরে কয়েকবার পদক্ষেপ নিয়েও সরানো যায়নি রাজধানীর ফুটপাতের দোকানগুলো।

একই দিনে শপথ নিলেও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ((ডিএসসিসি)) দায়িত্ব সাঈদ খোকনের হাতে আসে ১৭ মে। প্রায় শূন্য কোষাগার ও চরম আর্থিক সঙ্কটে থাকা এক প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব নেন তিনি। অনুমিতভাবেই ৫৭ ওয়ার্ডের বিপুল সংখ্যক মানুষের প্রত্যাশা পূরণে হিমশিম খেতে থাকেন এ মেয়র। যানজট নিরসন, দূষণমুক্ত, নাব্য ও নিরাপদ বুড়িগঙ্গা; পানি, গ্যাস ও বিদ্যুৎ সেবা নিশ্চিতকরণ, পরিচ্ছন্ন, দূষণমুক্ত ও স্বাস্থ্যকর মহানগরী এবং দুর্নীতি, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ও নাগরিকদের নিরাপদ জীবন ইত্যাদি বিষয়কে নির্বাচনী ইশতেহারে প্রাধান্য দিয়েছিলেন তিনি।

তবে গত এক বছরে এর কোনটিই পুরোপুরি বাস্তবায়ন হয়নি। যানজট এখনও নগরবাসীর নিত্যসঙ্গী। প্রতিদিন ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকে থাকতে হচ্ছে নগরবাসীকে। তবে কয়েক দফায় পুলিশ ও বাস মালিক-শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে বসে এর সমাধান করার চেষ্টা করেছেন মেয়র। কিন্তু সে সমস্ত বৈঠক যানজট সমস্যার সমাধানে কাজে লাগেনি। ফুটপাথ দখলমুক্ত করার উদ্যোগ নিয়েছেন। কিন্তু দখলদারদের দৌরাত্ম্যে ফুটাপাথেই মারা গেছে সে উদ্যোগ। সকালে উচ্ছেদের পর বিকেলেই আবার ফুটপাথের নিয়ন্ত্রণ হকারের দখলে! এর কারণ হিসেবে উঠে এসেছে, পুলিশের কিছু দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের বিশাল অঙ্কের চাঁদাবাজির ঘটনা। তারপরও মেয়র চ্যালেঞ্জ নিয়ে গত ১২ নবেম্বর ‘ক্লিন গুলিস্তান’ গড়ার ঘোষণা দেন। কিন্তু এতেও কাজ হয়নি। তাই দখলমুক্ত ফুটপাথ নগরবাসীর স্বপ্ন হয়েই থাকল। বুড়িগঙ্গার দূষণরোধে মেয়র আন্তরিক। এ জন্য প্রকল্প গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে। তবে এটি শুরু হতে এখনও অনেক সময় লাগবে। ফলে এর সুফল পেতেও ধৈর্য ধরতে হবে নগরবাসীকে।

দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে তিনি, কাউন্সিলররা এবং ডিএনসিসির কর্মকর্তারা বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে নিরন্তর কাজ হয়েছে বলে জানিয়েছেন মেয়র আনিসুল হক। তিনি জানান, যানজট নিরসনে সাতরাস্তা থেকে গাজীপুর পর্যন্ত ২২টি পয়েন্টে ইউ-লুপ নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তেজগাঁও রাস্তার ওপর থেকে ট্রাক স্ট্যান্ড অপসারণ করা হয়েছে। মহাখালী, কল্যাণপুর ও গাবতলী সড়ককে পার্কিংমুক্ত করা হয়েছে। কাওরান বাজার থেকে অবৈধ স্থাপনা সরানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ঢাকাকে গ্রিন ও ক্লিন করার কার্যক্রম চলছে। ইতোমধ্যে নগরবাসীর মধ্যে প্রায় ৫ লাখ গাছের চারা বিতরণ কর্মসূচি শুরু হয়েছে। ডিএনসিসির আওতাধীন এলাকার ৮০ শতাংশের বেশি বিলবোর্ড অপসারণ করা হয়েছে।

Traffic Jam2

প্রতি সপ্তাহে ৫/৬ দিন রাজধানীর প্রায় সব সড়কেই যানজন পরিলক্ষিত হয়। পরিবাগ থেকে ছবিটি তুলেছেন মহুবার রহমান

তিনি আরও বলেন, রাস্তার ওপর যাতে ময়লার স্তূপ না থাকে সে জন্য ৭২টি ট্রান্সফার স্টেশন নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। শতাধিক সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে, আরও সিসি ক্যামেরা স্থাপনের কাজ চলছে। ১৬৯ জন কর্মচারীকে আন্তঃবদলি করে কাজে গতি আনার চেষ্টা করেছেন।

মেয়র সাঈদ খোকন জানিয়েছেন, প্রশাসনিক দিক থেকে আর্থিক সঙ্কট দূর করা ছিল তার প্রথম চ্যালেঞ্জ। এজন্য প্রধানমন্ত্রীসহ বিভিন্ন উন্নয়ন ও দাতা সংস্থার সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি। অনেক দেশের রাষ্ট্রদূত, বিদেশি দাতা সংস্থার প্রতিনিধির সঙ্গেও বৈঠক হয়েছে। রমজানে বাজারমূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখতে বাজার মনিটরিং ও খাদ্যে ভেজালবিরোধী অভিযান শুরু হয়েছে। বেদখলে থাকা খেলার মাঠগুলো নগরবাসীর জন্য উন্মুক্ত করতে তৎপর ডিএসসিসি। ইতোমধ্যে পুরান ঢাকার ধূপখোলা মাঠ দখলমুক্ত করা হয়েছে। পাবলিক টয়লেটের সমস্যা সমাধানে রাজধানীর পেট্রোল পাম্পগুলোকে কাজে লাগানোর পরিকল্পনা নিয়েছেন তিনি। গুলিস্তানসহ অন্যান্য রাস্তা ও ফুটপাথের অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদে অভিযান চলছে।

অর্থসূচক/জে/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ