চীনে ট্রের্ডমাক যুদ্ধে হারল অ্যাপল
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

চীনে ট্রের্ডমাক যুদ্ধে হারল অ্যাপল

‘আইফোন’ নাম ব্যবহার করে হাত ব্যাগ ও অন্যান্য চামড়া পণ্য বিক্রি চালিয়ে যেতে বেইজিংভিত্তিক ফার্ম শিনটং তিয়ান্দির আর বাধা রইল না। কারণ, চীনে এ নিয়ে চলা ট্রেডমার্ক যুদ্ধে হেরে গেছে প্রযুক্তি জায়ান্ট অ্যাপল।

বামে অ্যাপলের আইফোন মোবাইল ও ডানে শিনটং তিয়ান্দির মোবাইল কাভার। দুই পণ্যেরই ট্রেডমার্ক আইফোন। ছবি: বিবিসি

বামে অ্যাপলের আইফোন মোবাইল ও ডানে শিনটং তিয়ান্দির মোবাইল কাভার। দুই পণ্যেরই ট্রেডমার্ক আইফোন। ছবি: বিবিসি

আজ বুধবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, শিনটং তিয়ান্দি প্রযুক্তির পক্ষে রায় দিয়েছে বেইজিং মিউনিসিপাল হাই পিপল’স আদালত।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘আইফোন’ নাম ব্যবহার করে হাতব্যাগ, মোবাইল ফোন কেস বা কাভার ও অন্যান্য চামড়া পণ্য বিক্রি করে শিনটং তিয়ান্দি। যা অ্যাপলের আইফোন মোবাইলের ট্রেডমার্ক বা প্রতীকের কাছাকাছি।

নিজেদের কাছাকাছি ট্রেডমার্ক ব্যবহার করায় ২০১২ সালে সর্বপ্রথম শিনটং এর বিরুদ্ধে চীনা ট্রেডমার্ক কর্তৃপক্ষের কাছে মামলা করে অ্যাপল। তাতে ব্যর্থ হলে বেইজিং নিম্ন আদালতে মামলা ঠুকে প্রযুক্তি জায়ান্টটি। তাতেও হেরে গেলে উচ্চ আদালতে আপিল করে অ্যাপল। আর শেষ পর্যন্ত তাও প্রত্যাখ্যান করল চীনের উচ্চ আদালত।

রায়ে উচ্চ আদালত জানিয়েছে, চীনে শিনটং তিয়ান্দির আগে অ্যাপল যে জনপ্রিয় ব্র্যান্ড ছিল তা প্রমাণ করতে পারেনি প্রযুক্তি জায়ান্টটি। শিনটং ২০০৭ সালে আইফোন ট্রেডমার্ক ব্যবহার করে। আর ২০০৯ সালে চীনে প্রথম আইফোন বিক্রি শুরু করে অ্যাপল।

আইফোনের বিক্রি থেকে ১৩ শতাংশ মুনাফা কমে যাওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পরেই এমন সংবাদ পেল অ্যাপল।

সম্প্রতি প্রযুক্তি জায়ান্ট কোম্পানিটি জানায়, আইফোন থেকে তাদের আয় ব্যপক কমে গেছে। শুধু চীনেই আইফোন থেকে কোম্পানিটর আয় কমেছে ২৬ শতাংশ। চীনে অন্যান্য কর্মকাণ্ডে বেশ বাধার সম্মুক্ষীণ হচ্ছে অ্যাপল।

প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে চামড়া পণ্যে আইফোন ট্রেডমার্ক ব্যবহার করে শিনটং তিয়ান্দি। অন্যদিকে, আপল ২০০২ সালে তাদের ইলেট্রনিক পণ্যে এই ট্রেডমার্ক ব্যবহার। তবে ২০১৩ সাল পর্যন্ত তা স্বীকৃত ছিল না।

অর্থসূচক/ডিএইচ

এই বিভাগের আরো সংবাদ