৪ ইস্যুতে বিএসইসির বৈঠক
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

৪ ইস্যুতে বিএসইসির বৈঠক

পুঁজিবাজার নিয়ে ইতিবাচক থাকতে মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। সেই সঙ্গে বাজারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফেরাতে ইতিবাচক ধারনা দেওয়ার আহ্বান জানায় কমিশন।

সোমবার বিকেলে শীর্ষ ব্রোকারেজ ও  মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোর প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠকের সময় এইসব আহ্বান জানায় বিএসইসি।

bsec

বিএসইসি-লোগো

এছাড়াও বাজারে লেনদেন বাড়ানোর বিষয় নিয়েআলোচনা হয় বৈঠকে। বৈঠকে বিএসইসির পক্ষ থেকে নিজ নিজ সম্পর্ককে কাজে লাগিয়ে বাজারে নতুন ফান্ড আনার উদ্যোগ নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়।

অন্যদিকে মার্চেন্ট ব্যাংকার ও ব্রোকারদের পক্ষ থেকে বেশ কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়। তারা বলেন, চাহিদা তৈরি না করে শেয়ারের যোগান বাড়ানোর বিষয়টি বাজারের জন্য অনুকূল নয়। চাহিদা ও যোগানের ভারসাম্য না থাকলে বাজারের অবস্থা আরও নাজুক হতে পারে। এতে এক সময় চাইলেও আইপিও নিয়ে আসা যাবে না। তাই বাজার স্থিতিশীল না হওয়া পর্যন্ত আইপিও অনুমোদন বন্ধ রাখার প্রস্তাব করেন তারা।

কোম্পানির স্পন্সরদের শেয়ার বিক্রি বন্ধ রাখারও পরামর্শ দেন অনেকে।স্পন্দরদের শেয়ারের কস্টিং প্রাইস তথা শেয়ারের ক্রয় মূল্য অনেক কম বলে তারা যে কোনো মূল্যে বাজারে শেয়ার বিক্রি করতে দ্বিধা করেন না। এই বিক্রির চাপে বাজারে দরপতন অবধারিত হয়ে উঠে।

বৈঠক থেকে ব্রোকারদের ডিলার অ্যাকাউন্টের সক্ষমতা বাড়ানোরও পরামর্শ আসে।

বৈঠক শেষে বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) সভাপতি মো. ছায়েদুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, পুঁজিবাজার পরিস্থিতি নিয়ে প্রতি মাসেই বিএসইসি আমাদের সঙ্গে বৈঠক করে। এটি সেই নিয়মিত বৈঠকেরই অংশ। এই বৈঠকের জন্য বিশেষ কোনো আলোচ্যসূচি ছিল না। বৈঠকে পুঁজিবাজারের বর্তমান অবস্থা নিয়ে আলোচনা হয়েছে।বাজারকে ভালো অবস্থানে নিয়ে যেতে আমরা বিএসইসির সঙ্গে মতবিনিময় করেছি।

পুঁজিবাজারে কিছু ব্যাংকের বাড়তি বিনিয়োগ সমন্বয়ে (Over Exposure) বাংলাদেশ ব্যাংক যে উদ্যোগ নিয়েছে সে সম্পর্কে জানতে চাইলে বিএমবিএ সভাপতি বলেন, এটি খুবই ইতিবাচক উদ্যোগ। এর ফলে বাজারে নতুন করে ফান্ড আসতে পারবে। বাজারে বিক্রির চাপ কমে আসবে।

তিনি বলেন, আমরা পুঁজিবাজারের জন্য সব সময় ইতিবাচক সিদ্ধান্ত চেয়েছি। আজকের সিদ্ধান্তকে আমরা স্বাগত জানাই।

উল্লেখ, সোমবার বিকালে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ব্যাংক ওভার এক্সপোজার সমন্বয়ে নীতিসহায়তার বিষয়টি তুলে ধরে। এতে জানানো হয়, তারা ওভার এক্সপোজার রয়েছে এমন ৮টি ব্যাংককে করণীয় সম্পর্কে পরামর্শ দিয়েছেন। সেই আলোকে ব্যাংকগুলোকে বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে আবেদন করতে বলা হয়েছে। তারা আবেদন করলে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক ওই আবেদন অনুমোদন করবে।ওভার এক্সপোজার সমস্যার সমাধানে ব্যাংকের সহযোগী প্রতিষ্ঠানকে (Subsidiary Company)  প্রদত্ত ঋণ ওই কোম্পানির মূলধনে রূপান্তর করার বিষয়টিকে অন্যতম প্রধান করণীয় হিসেবে বেছে নেওয়া হচ্ছে। এভাবে ওভার এক্সপোজার সমস্যার সমাধান হলে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকগুলোকে বাজারে শেয়ার বিক্রি করে বাড়তি বিনিয়োগ সমন্বয় করতে হবে না। বিদ্যমান ব্যাংক কোম্পানি আইনের শর্ত অনুসারে আগামী ২১ জুলাইয়ের মধ্যে ওই বিনিয়োগ সমন্বয় করার কথা।

অনুষ্ঠানে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক সাইফুর রহমানসহ শীর্ষ ব্রোকারেজ ও মার্চেন্ট ব্যাংকের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ