ভয়াল ২৯ এপ্রিল আজ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ভয়াল ২৯ এপ্রিল আজ

আজ সেই ভয়াল ২৯ এপ্রিল। ১৯৯১ সালের এ দিনে প্রলয়ংকরী ঘূর্ণিঝড়ে লণ্ডভণ্ড হয়ে গিয়েছিল কক্সবাজারের মহেশখালী, কুতুবদিয়া, চকরিয়া, পেকুয়াসহ বিভিন্ন উপকূলীয় এলাকার বিস্তীর্ণ জনপদ। সরকারি হিসাব মতে, ওই ঘূর্ণিঝড়ে ১ লাখ ৩৮ হাজার মানুষ প্রাণ হারায়। অসংখ্য বাড়ি-ঘর, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও দপ্তর লণ্ডভণ্ড হয়ে যায়। হাজার হাজার গবাদিপশুর মৃত্যু হয়। আজও দুঃস্বপ্নের মতো সেই স্মৃতি তাড়িয়ে বেড়ায় উপকূলবাসীকে।Ctg-29-April-Cyclone

ওই দিনের মহাপ্রলয়ের রাতের ঘূর্ণিঝড়ে লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছিল চট্টগ্রামের বিস্তীর্ণ আনোয়ারা ও বাঁশখালী উপকূলীয় এলাকা। বঙ্গোপসাগর ও শংখনদীর বেড়িবাঁধে বিলীন হয়ে স্রোতের সঙ্গে ভেসে গিয়েছিল পুরো এলাকার সব বাড়ি-ঘর, গাছপালা, গবাদিপশু। হাজার হাজার নারী পুরুষ ও শিশুর সলিল সমাধি ঘটেছিল সেই রাতের জলোচ্ছাসে। এমনকি বাঁশখালী উপজেলার সমগ্র উপকূলীয় এলাকা মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছিল।

ঘণ্টায় ২৩৫ কিলোমিটার বেগে প্রায় ৬ মিটার (২০ ফুট) উঁচু এ সাইক্লোনের আঘাতে সেই কালরাত্রিতে ছিনিয়ে নেয় ৫ লাখ মানুষের জীবন। যাদের ৪ ভাগের ৩ ভাগই ছিল শিশু ও নারী।

ঘূর্ণিঝড়ের দীর্ঘ ২৫ বছর পার হয়ে গেলেও উপকূলের লাখ লাখ মানুষ তাদের ক্ষতি এখনও পুষিয়ে উঠতে পারেনি। পানির স্রোতে রাস্তাঘাট মাটির সঙ্গে মিশে গিয়েছিল সেই দিন। ঘর-বাড়ি ভেঙে চুরমার, গাছপালা ও ফসলাদির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছিল। ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে কোথাও কোনো জনমানবের বসবাসের চিহ্নও ছিল না। সমুদ্র উপকূলের বেড়ীবাঁধ ভেঙে জোয়ারের পানি লোকালয়ে প্রবেশ করেছিল।

ওই ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী সময়ে চকরিয়ার উপকূলীয় ইউনিয়নগুলোতে যেসব সাইক্লোন সেন্টার স্থাপিত হয়েছিল কর্তৃপক্ষের অবহেলায় সংস্কার ও রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে বর্তমানে অনেকটা অকেজো অবস্থায় রয়েছে সেগুলো। অধিকাংশ আশ্রয়কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে গেছে। কোনাখালী, ঢেমুশিয়া, পশ্চিম বড় ভেওলা, চিরিংগা, সওদাগরঘোনা, বুড়িপুকুর, চরণদ্বীপ, রামপুর এলাকার প্রায় ৩৭টি আশ্রয়কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। এসব কেন্দ্রে মানুষের বসবাস কিংবা আশ্রয় গ্রহণ নিরাপদ নয় বলে জানিয়েছেন এলাকার মানুষ।

এখনও বেড়িবাঁধ ও ঝুঁকিপূর্ণ বেড়িবাঁধের মধ্যে চরম আতঙ্কে বাস করছে সেখানকার মানুষ। প্রতি বর্ষায় নির্ঘুম রাত কাটান তারা।

প্রতি বছরের মতো এবারও বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন এ দিনটিকে স্মরণ করছে।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ