ডেপুটি গভর্নর নিয়োগে ১৫ মের মধ্যে সুপারিশ জমা
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ডেপুটি গভর্নর নিয়োগে ১৫ মের মধ্যে সুপারিশ জমা

আগামী ১৫ মের মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর নিয়োগে বাছাইকৃত প্রার্থীদের তালিকা সরকারের কাছে জমা দেবে সার্চ কমিটি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের লোগো। ছবি সংগৃহীত

বাংলাদেশ ব্যাংকের লোগো। ছবি সংগৃহীত

আজ বৃহস্পতিবার সংক্ষিপ্ত তালিকার প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ শেষে কমিটির চেয়ারম্যান কাজী খলীকুজ্জামান এ কথা জানান।

তিনি বলেন, দুই দিনে ২১ জনের পরীক্ষা নেওয়ার কথা ছিল। তবে এর মধ্যে দুজন প্রার্থী আসেননি। পরীক্ষা নেওয়া শেষ হলো। তবে কত জনকে সুপারিশ করা হবে তা এখনো নির্ধারণ করা হয়নি।  এর জন্য আরেকটা মিটিং লাগবে; ৮/৯ তারিখের দিকে আমরা সেটা করে সুপারিশ দিয়ে দিতে পারবো।  আমার ধারণা ১৫ মে’র মধ্যে তা সরকারের কাছে জমা দিয়ে দিতে পারবো।

কত জনকে সুপারিশ করা হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সেটা আমরা এখনো জানি না। আমাদের বিবেচনায়, মানে বোর্ডে যারা আছি তাদের ধারণায় যদি কেউ দায়িত্ব পালন করতে সক্ষম না হন তবে তার জন্য সুপারিশ করবো না। শুধুই যারা সক্ষম তাদের জন্যই সুপারিশ করবো।

যোগ্য প্রার্থী খুঁজে পেয়েছেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা পেয়েছি।

এদিকে ব্যাংক সুত্রে জানা গেছে, দুই দিনে যেসব প্রার্থী সাক্ষাৎকারে অংশ নেন তারা হলেন- বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক নির্বাহী পরিচালক আহসান উল্লাহ, মাহফুজুর রহমান, আব্দুল হক, কাজী নাসির আহমেদ এবং বর্তমানে নিবার্হী পরিচালক এসএম মনিরুজ্জামান, নওশাদ আলী চৌধুরী, আব্দুর রহিম, নির্মল চন্দ্র ভক্ত, বিষ্ণুপদ সাহা, মিজানুর রহমান জোয়ার্দার, সাইফুল ইসলাম, হুমায়ূন কবির, আহমেদ জামাল, মো. নাসির উদ্দিন।

এছাড়া রূপালী ব্যাংকের ডিএমডি খলিলুর রহমান, হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্স করপোরেশনের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওমর ফারুক, রাকাবের ডিএমডি আবদুল খালেক খান, বিডিবিএলের ডিএমডি আফজালুল বাশার এবং একমাত্র নারী প্রার্থী উত্তরা ব্যাংকের ডিএমডি সাবেরা আক্তারি জামাল সাক্ষাৎকারে অংশ নেন।

প্রসঙ্গত, গত ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে ফেডারেল রিজার্ভের বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট থেকে ১০১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার শ্রীলঙ্কা ও ফিলিপাইনে স্থানান্তরিত করে দুর্বৃত্তরা। এর প্রায় এক মাস পরে ফিলিপাইনের ইনকোয়ারার পত্রিকায় অর্থ পাচার সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশের পর রিজার্ভ চুরির বিষয়টি ফাঁস হয়।

এ ঘটনার জের ধরে গভর্নর পদ থেকে সরে দাঁড়ান ড. আতিউর রহমান। একইসাথে আবুল কাশেম ও নাজনীন সুলতানাকে ডেপুটি গভর্নরের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। এরপরই নতুন ডেপুটি গভর্নর নিয়োগের জন্য কাজী খলীকুজ্জামানকে প্রধান করে সার্চ কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির বাকি সদস্যরা হলেন গভর্নর ফজলে কবির, বিআইডিএসের মহাপরিচালক কে এ এস মুর্শিদ, অগ্রণী ব্যাংকের চেয়ারম্যান জায়েদ বখত ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব গোকুলচাঁদ দাস।

কমিটি গত মার্চের শেষের দিকে ডেপুটি গভর্নর পদে নিয়োগের জন্য দরখাস্ত আহ্বান করে বিজ্ঞপ্তি দেয়। ডিজি নিয়োগের জন্য প্রজ্ঞাপন জারির পর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রায় ৬০টি আবেদন জমা পড়ে। এসব আবেদন থেকে বাছাই করে ২১ জনকে সাক্ষাৎকারের জন্য ডাকা হয়। তবে এর মধ্যে দুই জন সাক্ষাৎকার দিতে আসেননি।

এসবি

এই বিভাগের আরো সংবাদ