নেপাল এখনো ধ্বংসস্তুপে
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক

নেপাল এখনো ধ্বংসস্তুপে

২৫ এপ্রিল, ২০১৫। ঠিক এই দিনেই অন্ধকার নেমে এসেছিল নেপালের আকাশে। ৭ দশমিক ৮ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্পে  মাত্র কয়েক সেকেন্ডেই লণ্ডভণ্ড গিয়েছিল পুরো দেশ। এভারেস্ট পর্বতের সৃষ্ট তুষারধস ও ভবনের নীচে চাপা পড়ে প্রাণ হারায় অন্তত ৮ হাজার মানুষ। আহত হয় সাড়ে ২২ হাজার এবং গৃহহীন হয়ে পড়েন ৪০ লাখেরও বেশি।

২০১৫ সালে ২৫ এপ্রিল নেপালে ভূমিকম্পের পর রাস্তার দৃশ্য।

২০১৫ সালে ২৫ এপ্রিল নেপালে ভূমিকম্পের পর রাস্তার দৃশ্য।

ভয়াবহ সেই দুর্যোগের এক বছর পেরিয়ে গেছে ঠিকই কিন্তু আজও সেই বিপর্যয়ের ধকল কাটিয়ে উঠতে পারেনি দেশটি। এখনো বিধ্বস্ত স্তুপের নিচেই পড়ে আছে নেপাল।

এদিকে, ভূমিকম্পে বিধ্বস্ত নেপালের পুনর্গঠনে আন্তর্জাতিক সহায়তা থাকা সত্ত্বেও দেশটির সরকার এখনও পর্যন্ত একটি বাড়িও পুনর্গঠন করতে পারেনি বলে অভিযোগ উঠেছে।

অনেকেই বলছেন, ভূমিকম্পের এক বছর পেরিয়ে গেলেও তারা সরকারের তরফ থেকে আশা পেয়েছে, কিন্তু বাস্তবতা পায়নি।অনেকেই আবার সরকারের আশা ছেড়ে দিয়ে নিজেরাই হাল ধরেছে। নিজেদের ঘরবাড়ি নতুন করে সাজাচ্ছে।

বামে এক বছর আগের চিত্র; ডানে বর্তমান দৃশ্য

বামে এক বছর আগের চিত্র; ডানে বর্তমান দৃশ্য

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে জানানো হয়েছে, ভূমিকম্পে মোট ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ৭শ কোটি ডলার হলেও কিছু ক্ষতির হিসাব টাকার অংক ছাড়িয়ে যায়। আজও দেশটির ৮ হাজার স্কুলের নির্মাণকাজ অসম্পূর্ণ থাকায় ১০ লাখ শিশুর পাঠদান চলছে খোলা আকাশের নীচে। এছাড়া দীর্ঘমেয়াদী মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়েছে দেশটির অর্থনীতির প্রধান চালিকাশক্তি পর্যটন শিল্প।

আগের চাইতে ব্যবসা ৫০ ভাগ কমে আসায় মানবেতর পরিস্থিতিতে রয়েছে এই শিল্প সংশ্লিষ্ট অসংখ্য মানুষ। গত বছরের ভূমিকম্পের পর এখন পর্যন্ত ৩০ হাজার পরবর্তী ঝাঁকুনি রেকর্ড করেছে দেশটির সিসমোলজিকাল কেন্দ্র। এরমধ্যে সাড়ে ৪শ’টি ছিলো ৪ মাত্রার উপরে।

স্বজন ও সহায় সম্বল হারানো বিপর্যস্ত নেপালবাসীকে আজও সেই বিভীষিকাময় স্মৃতি দুঃস্বপ্নের মতো তাড়িয়ে বেড়ায়। এর মাঝেও কেউ নতুনভাবে বাঁচার স্বপ্ন বোনেন। স্থানীয়দের আশা, একদিন নিশ্চয়ই আগের রূপ ফিরে পাবে নেপাল। পর্যটকদের আনাগোনায় মুখর হয়ে উঠবে প্রতিটি অলিগলি।

প্রাকৃতিক ধ্বংসযজ্ঞে গৃহহীন ৪০ লাখ মানুষের পুনর্বাসনে এবং ক্ষতিগ্রস্ত অবকাঠামো পুনর্নির্মাণে আন্তর্জাতিক দাতা দেশগুলো ৪১০ কোটি ডলার সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিলেও তহবিলের তদারকিকে কেন্দ্র করে অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক বিরোধের কারণে ক্ষতিগ্রস্তদের আজো কোনো হাল হয়নি।

এই বিভাগের আরো সংবাদ