ব্যাংকিং খাতে দুর্নীতি বন্ধে দ্রুত ও দৃশ্যমান বিচারের দাবি
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ব্যাংকিং খাতে দুর্নীতি বন্ধে দ্রুত ও দৃশ্যমান বিচারের দাবি

ব্যাংকিং খাতের অনিয়ম-দুর্নীতি বন্ধে অতি দ্রুত ও দৃশ্যমান বিচারের দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহ উদ্দিন আহমেদ।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীতে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) আয়োজিত ‘ব্যাংকিং খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় করণীয়’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে এ দাবি জানান তিনি। এসময় দেশের ব্যাংকিং খাতে নানা অনিয়মের চিত্র তুলে ধরে সুজন।।

Sujon3

রাজধানীতে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘ব্যাংকিং খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় করণীয়’ শীর্ষক সুজনের গোলটেবিল বৈঠক।

ব্যাংকিং খাতের অনিয়ম-দুর্নীতি বন্ধে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে পরামর্শ দিয়ে সাবেক এই গভর্নর বলেন, দেশের ব্যাংকগুলোকে বেশি নিয়ন্ত্রণ করা যাবে না। বেশি নিয়ন্ত্রণ করাটা খারাপ। এক্ষেত্রে ব্যালেন্স করতে হবে।

আর্থিক খাতে গণ্ডগোল হলে দেশের উন্নয়ন বাধাগ্রস্থ হয় বলেও মন্তব্য করেন এই অর্থনীতিবিদ।

ব্যাংকগুলোকে তাদের নিয়মের পরিপালন করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, নিয়ম পরিপালনের ব্যাপারে সচেষ্ট না হলে সারাজীবনেও অনিয়ম-দুর্নীতি বন্ধ হবে না।

সালেহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, শুধু আইটি মেশিন হলেই হবে না। ব্যাংকের আইডি সেক্টরে দক্ষ ও সৎ মানুষের প্রয়োজন। এগুলো চালানো লোকদের দক্ষ করে তুলতে হবে।

ব্যাংকারদের মনোভাব পরিবর্তনে আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ব্যাংকগুলোকে যথাসময়ে ঋণ দিতে হবে। ঋণ কার্যক্রম এবং টার্গেটগুলো ফুলফিল হচ্ছে কি না- তা নজরে রাখতে হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তদারকি ও নিয়ন্ত্রণ আরও স্বচ্ছ হতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাবেক গভর্নর বলেন, ব্যাংকিং সেক্টরে রাজনীতি ঢুকে গেলে এই সেক্টর ভালো থাকতে পারে না। রাজনীতি স্বচ্ছ না হলে কিছুই ঠিক হবে না।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা হাফিজ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে গোলটেবিল বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা মির্জা আজিজুল ইসলাম, পুঁজিবাজার বিশ্লেষক অধ্যাপক আবু আহমেদ, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, সুজনের সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার প্রমুখ।

অর্থসূচক/মেহেদী/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ