পয়েন্ট ভিত্তিতে সিরিজ আয়োজনের প্রস্তাব ইংল্যান্ডের
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

পয়েন্ট ভিত্তিতে সিরিজ আয়োজনের প্রস্তাব ইংল্যান্ডের

প্রায় সারাবছরই বিশ্বের নানা প্রান্ত ক্রিকেট আনন্দে মেতে থাকে। তবে বেশিরভাগ সময় সেই আনন্দ পরিপূর্ণতা পায় না। দুই বা তিন দেশ নিয়ে আয়োজিত সিরিজের ফলাফল অনেক সময় মধ্য পথেই জানা হয়ে যায়। সিরিজের বিজয়ী ও পরাজিত দল চিহ্নিত হয়ে গেলেই কমে যায় সিরিজের উল্লাস। নিষ্প্রাণ হয়ে যায় পরের ম্যাচগুলো। অনেকটা দর্শকশূন্য মাঠেই আনুষ্ঠানিকতার ম্যাচে অংশ নেন খেলোয়াড়রা।

তবে সিরিজের শেষ ম্যাচ পর্যন্ত উত্তেজনা ধরে রাখতে নতুন নিয়ম চালু করতে যাচ্ছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। আগামী ১৯ মে থেকে শুরুর অপেক্ষায় থাকা সিরিজ পয়েন্ট ভিত্তিক করার জন্য শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট (এসএলসি) বোর্ডের কাছে প্রস্তাব দিয়েছে ইসিবি।

England Test Team2

ইংল্যান্ড টেস্ট দলের কয়েকজন।

শ্রীলঙ্কাকে দেওয়া ইংল্যান্ডের প্রস্তাব অনুযায়ী, প্রতিটি টেস্টের জন্য ৪ পয়েন্ট; প্রতিটি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ (ওডিআই) ও টি-টোয়েন্টির জন্য ২ করে বরাদ্দ থাকবে। প্রতিটি ম্যাচে জয়ী দল পাবে পূর্ণ পয়েন্ট। পরাজিত দল কোনো পয়েন্ট পাবে না। যদি ম্যাচের কোনো ফলাফল পাওয়া না যায় অর্থাৎ ম্যাচ ড্র ঘোষিত হয় সেক্ষেত্রে উভয় দলকে সমান পয়েন্ট ভাগ করে দেওয়া হবে। সিরিজের সব খেলে শেষে যে দল বেশি পয়েন্ট পাবে, তারাই হবে সিরিজের চূড়ান্ত বিজয়ী।

এই পদ্ধতিতে খেলার আয়োজন করা হলে শেষ ম্যাচ পর্যন্ত উত্তেজনা টিকে থাকবে বলে দাবি করছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। ইসিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, নতুন নিয়ম চালু করল সিরিজের শেষ ম্যাচের গুরুত্ব অনেক বেড়ে যাবে।

আসন্ন সিরিজে এই পদ্ধতিতে খেলতে শ্রীলঙ্কার কাছে প্রস্তাব রাখা হলেও এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত জানায়নি শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড। এসএলসি বোর্ডের সচিব মোহন ডি সিলভা বলেন, ইংল্যান্ডের প্রস্তাবের বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি শ্রীলঙ্কা।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৩ টেস্ট, ৫টি ওডিআই ও ২টি টি-টুয়েন্টি ম্যাচ খেলবে শ্রীলঙ্কা। আগামী ১৯ মে থেকে শুরু হবে ইংল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কার এই লড়াই।

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালে নারী দলের অ্যাশেজ সিরিজে পয়েন্টভিত্তিক পদ্ধতি চালু করেছিল ইংল্যান্ড। সে সময়ে প্রতি টেস্ট জয়ের জন্য ৬ পয়েন্ট করে বরাদ্দ ছিল।

অর্থসূচক/বিসি/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ