ইতিহাস গড়লেন বাঙালি নারী
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » খেলাধুলা

ইতিহাস গড়লেন বাঙালি নারী

প্রথম বাঙালি তরুণী হিসেবে অলিম্পিক জিমন্যাস্টিকসে অংশগ্রহণের যোগ্যতা অর্জন করেছেন দীপা কর্মকার। রিও ডি জেনিরোতে অলিম্পিকের বাছাইপর্বে ৫২ হাজার ৬৯৮ পয়েন্ট স্কোর গড়ে বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ স্পোর্টস ইভেন্টে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার গৌরব অর্জন করেন তিনি।

দীপা কর্মকর। ছবি সংগৃহীত

দীপা কর্মকর। ছবি সংগৃহীত

একই সঙ্গে প্রথম ভারতীয় নারী হিসেবে ভল্টে সোনা জিতে গৌরবে ভাসিয়েছেন গোটা ভারতবাসীকে। শুধু প্রথম বাঙালি নারী হিসেবে নয়, প্রথম ভারতীয় নারী হিসেবেও অলিম্পিক জিমন্যাস্টিকসে অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছেন তিনি।

দীপার এমন কীর্তিতে উচ্ছ্বসিত গোটা ভারত। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি থেকে শুরু করে ক্রিকেট ইশ্বর শচীন টেন্ডুলকার, মাস্টার ব্যাটসম্যান বীরেন্দর শেবাগ ও নির্ভরতার প্রতীক ভিভিএস লক্ষ্মণের মতো ক্রিকেটাররা তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

আজ মঙ্গলবার জম্মুতে এক বিশ্ববিদ্যালয়ে বক্তৃতাদানকালে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই তো গতকালই রিও অলিম্পিকে দেশের জন্য সুনাম বয়ে এনেছেন এক মেয়ে। এ ধরনের দৃষ্টান্ত আমাদের শক্তি দেয়।

শচীন টেন্ডুলকার টুইটে লিখেছেন,  ইতিহাস গড়ার জন্য দীপাকে অভিনন্দন। তোমার এই সাফল্য ভারতের তরুণ প্রজন্মকে আরো অনুপ্রাণিত করবে। অনেক শুভেচ্ছা।

দীপা কর্মকার বলেন, অলিম্পিকের মঞ্চে দাঁড়ানো অত্যন্ত আনন্দের অনুভূতি। রিওতে আমি আমার সর্বাত্মক চেষ্টা করবো।

ত্রিপুরার আগরতলায় অভয়নগরে পরিবারের সঙ্গে থাকেন দীপা। তার বাবা দুলাল কর্মকারও একজন সাবেক ক্রীড়াবিদ। মা গৌরী কর্মকার একজন গৃহিণী।

দুলাল কর্মকার বলেন, এখন তারা ত্রিপুরার আগরতলায় বাস করলেও তাদের আদি নিবাস নরসিংদীর রায়পুরায়। দীপার জন্ম ভারতে হলেও তাদের পূর্বপুরুষেরা বাংলাদেশ থেকে ত্রিপুরায় গেছেন।

অর্থসূচক/ডিএইচ

এই বিভাগের আরো সংবাদ