'জনগণকে ধোকা দিচ্ছে নির্বাচন কমিশন'
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘জনগণকে ধোকা দিচ্ছে নির্বাচন কমিশন’

নির্বাচনের নামে বর্তমান নির্বাচন কমিশন জনগণকে ধোকা দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন বেসরকারি সংগঠন সুশাসনের জন্য নাগরিকের (সুজন) সভাপতি বদিউল আলম মজুমদার।

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন তিনি। সম্প্রতি দুই ধাপে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের হালচাল ও করণীয় বিষয়ে এই সংবাদ সম্মলনের আয়োজন করা হয়।

SUJON

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত ‘ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের হালচাল ও করণীয়’ শীর্ষক সংবাদ সম্মলনে বক্তব্য রাখেন সুজন সভাপতি বদিউল আলম মজুমদার। ছবি: মহুবার রহমান

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপের ব্যাপক সহিংসতা ও হতাহতের তথ্য তুলে ধরে সুজন সভাপতি বলেন, নির্বাচন কমিশনের ব্যর্থতার কারণে আজ দেশের পুরো নির্বাচন প্রক্রিয়া ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। যদি এই অনিয়ম প্রতিষ্ঠিত হয়ে যায়, তবে দেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা অত্যন্ত সংকটে পড়বে। যেখান থেকে আর উত্তোলন করা সম্ভব হবে না।

তিনি বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে- এ দাবিতে আত্মতৃপ্তির ঢেকুর তুলে নির্বাচন কমিশন। তবে এটি প্রমাণিত যে, নিরপেক্ষ ও সাহসিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে কমিশন। তারা চাইলেও আর সুষ্ঠু নির্বাচন করতে পারবে না। কারণ পুরো পরিস্থির উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছে। জনগণও তাদের প্রতি আস্থা বিশ্বাস হারিয়েছে।

নির্বাচনে অনিয়ম ও কারচুপির ক্ষেত্রে আগের সব রেকর্ড ছাড়িয়েছে উল্লেখ করে বদিউল আলম অভিযোগ করেন, এবারের নির্বাচনে অনিয়মের ঘটনা ঘটেছে একেবারে প্রকাশ্যে এবং বেপরোয়াভাবে। ভোট জালিয়াতির ক্ষেত্রে ক্ষমতাসীন দলের সমর্থকরা কোনো রাগঢাক রাখেনি। এছাড়া দলীয় প্রতীকে নির্বাচনের কারণে মনোনয়ন বাণিজ্য বেড়ে নির্বাচনকে হুমকিতে ফেলছে। এতে জেতার মানসিকতা প্রকট হয়ে বাড়ছে সহিংসতা।

তিনি বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের পথে নির্বাচন কমিশনই এখন সবচেয়ে বড় বাধা। নির্বাচন কমিশন যদি ভবিষ্যতে সুষ্ঠু নির্বাচন পরিচালনা করতে না পারে, তাহলে দায়িত্ব থেকে তাদের সরে দাঁড়ানো উচিত। কারণ এ অবস্থায় চলতে থাকলে আগামীতে আর নির্বাচনের প্রয়োজন হবে না। বরং সরাসরি গেজেট দিয়ে প্রতিনিধি ঘোষণা করলেই চলবে।

SUJON2

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত ‘ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের হালচাল ও করণীয়’ শীর্ষক সংবাদ সম্মলনে বক্তব্য রাখেন সুজনের প্রধান সমন্বয়ক দীলিপ সরকার। ছবি: মহুবার রহমান

দ্বিতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সহিংসতা ও অনিয়মের তথ্য তুলে ধরে সুজনের প্রধান সমন্বয়ক দীলিপ সরকার বলেন, এই ধাপে নির্বাচনের দিন নিহত হয়েছে ৯ জন এবং কয়েকশ জন আহত হয়েছে। এছাড়া নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার পর থেকে সহিংসতায় এখন পর্যন্ত সারাদেশে ৫৬ জন নিহত ও পাঁচ হাজারের মত আহত হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে দীলিপ সরকার বলেন, শুধু নির্বাচন কমিশনই নয়; ক্ষমতাসীন দলও নির্বাচনে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করনেনি। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ব্যাপক মনোনয়ন বাণিজ্যের প্রমাণও পাওয়া গেছে।

অর্থসূচক/শাফায়াত/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ