পৃষ্ঠপোষকতা না থাকায় ক্রিকেটে পিছিয়ে পড়ছে চট্টগ্রাম
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

পৃষ্ঠপোষকতা না থাকায় ক্রিকেটে পিছিয়ে পড়ছে চট্টগ্রাম

একটা সময় চট্টগ্রামের এম.এ. আজিজ স্টেডিয়ামকে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের স্বর্গোদ্যান বলা হতো। কিন্তু ভাগ্যের পরিহাসে সেই মাঠে এখন আর আন্তর্জাতিক ম্যাচ হয় না। তার পরিবর্তে বিভাগী স্টেডিয়াম হিসেবে তৈরি হয়েছে সাগরিকার জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম।

অন্যদিকে এই বিভাগীয় খেলার ব্যবস্থা খুব একটা ভালো যাচ্ছে না গত কয়েক বছর ধরে। তামিম ইকবাল ও নাজিম উদ্দীনের পর চট্টগ্রাম থেকে নতুন কোনো মুখ দেখেনি বিসিবি ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা (আইসিসি)। এনিয়ে চট্টগ্রামের মানুষের মধ্যে আনেক ক্ষোভ। চট্টগ্রামে ক্রিকেট প্রসঙ্গে জুনিয়র ক্রিকেট ট্রেনিং একাডেমির কোচ ফারুক হোসেন টিটুর সাক্ষাৎকার নিয়েছেন আবির সাদাফ

Faruk Hossen Titu

চট্টগ্রামের জুনিয়র ক্রিকেট ট্রেনিং একাডেমির কোচ ফারুক হোসেন টিটু।

প্রশ্ন: চট্টগ্রামে খেলার ব্যবস্থা এখন কেমন?

টিটু: আসলে খেলার ব্যবস্থা বলতে তেমন কিছুই হচ্ছে না। আগের মতো খুব একটা টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হচ্ছে না। মাঝে মাঝে এখানে লিগের আয়োজন করা হয়। ধারাবাহিকতা এবং পৃষ্ঠপোষকতা না থাকায় ক্রিকেটে পিছিয়ে পড়ছে চট্টগ্রাম।

প্রশ্ন: চট্টগ্রামে ছেলেদের খেলা ও খেলার ব্যবস্থা নিয়ে কতটুকু আশাবাদী?

টিটু: চট্টগ্রামে অনেক নতুন নতুন খেলোয়াড় তৈরি হচ্ছে। তবে তারা নিজেকে প্রমাণের সুযোগ পাচ্ছে না। এই দুর্গতির মধ্যেও চট্টগ্রামের কয়েকজন খেলোয়াড় পাইপলাইনে আছে। এদের মধ্যে ইয়াসির আলি রাব্বি অন্যতম। তাকে নিয়ে আমরা এবং বিসিবি আশাবাদী। আশা জাগানিয়া আরও কিছু খেলোয়াড় আছে। একটা সময় বাংলাদেশ টিমে তারা ডমিনেট করতে পারবে বলে আশা করছি।

প্রশ্ন: তামিম ইকবাল ও নাজিম উদ্দীনের পর চট্টগ্রাম থেকে জাতীয় দলে কেউ সুযোগ পাননি। এমন কেন হচ্ছে?

টিটু: গত কয়েক বছরে চট্টগ্রামের কোনো খেলোয়াড় জাতীয় দলে সুযোগ পাননি- এটা সত্য। তবে ইতোমধ্যে উঠে এসেছে অনেকেই। তাদের প্রমাণের জন্য সময় লাগবে। যেমন চিটাগাং ভাইকিংসের হয়ে বিপিএলে খেলেছিল রাব্বি। সে এখন পাইপলাইনে আছে। ঢাকা ডাইনামাইটসের হয়ে খেলেছিল উইকেটকিপার ইরফান শুক্কুর। পরবর্তীতে জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার ক্ষেত্রে তারও অনেক সম্ভাবনা রয়েছে।

প্রশ্ন: চট্টগ্রামের মেয়েদের কেমন সম্ভাবনা রয়েছে?

টিটু: জুনিয়র ক্রিকেট ট্রেনিং একাডেমির মাধ্যমে মেয়েদের খেলানোর উদ্যোগ নিয়েছি; তাদের খেলার ব্যবস্থা করছি। এখনও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তবে তাদেরকে এখনও ঠিক লাইনে আনতে পারিনি।

প্রশ্ন: মেয়েদের জন্য পৃথক কোনো টুর্নামেন্ট হয় না কেন?

টিটু: আসলে আমাদের দেশে মেয়েদের কোনো বিভাগীয় টিম নাই। তাদের কোনো ক্রিকেট লিগই হয় না। এ কারণে ক্রিকেটার হিসেবে মেয়েদের সফলতা খুব বেশি না। যে কয়েকজন আসছে, প্রয়োজনীয় পৃষ্টপোষকতার অভাবে তারাও হতাশ হয়ে ফিরে।

প্রশ্ন: চট্টগ্রামে খেলার ব্যাপারে বিসিবির উদ্যোগের বিষয়ে আপনার মন্তব্য কি?

টিটু: বিসিবির পক্ষ থেকে বিভাগীয় কোচদের ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করা হলে অনেক ভালো হতো। আর চট্টগ্রামে ক্রিকেটের সম্পূর্ণভাবে চট্টগ্রাম ক্রিড়া সংস্থা (সিজেকেএস) নিয়ন্ত্রণ করে। বেশি টুর্নামেন্ট আয়োজন করা হলে ভালো খেলোয়াড় বের হয়ে আসবে।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ