খুলনা অঞ্চলের পাটকল শ্রমিকদের বাদ দিয়ে বৈঠক, অবরোধ অব্যাহত
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

খুলনা অঞ্চলের পাটকল শ্রমিকদের বাদ দিয়ে বৈঠক, অবরোধ অব্যাহত

পাট প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে খুলনা অঞ্চলের শ্রমিক নেতাদের পূর্ব নির্ধারিত বৈঠক না হওয়ায় অবরোধ অব্যাহত রেখেছেন শ্রমিকরা। দ্বিতীয় দফা অবরোধের তৃতীয় দিন আজ বুধবার ভোর ৬টা থেকে রাজপথ-রেলপথ অবরোধ করেছেন তারা। একইসঙ্গে শ্রমিক ধর্মঘটের কারণে ৯ম দিনের মতো বন্ধ রয়েছে পাটকলের উৎপাদন।

খুলনা মহানগরীর খালিশপুরের নতুন রাস্তা মোড়, আটরা গিলাতলা ও যশোর অভয়নগরের রাজঘাট শিল্প এলাকায় অবস্থান নিয়ে অবরোধ করছেন পাটকল শ্রমিকরা।

বাংলাদেশ রাষ্ট্রায়ত্ত জুটমিল সিবিএ-ননসিবিএ ঐক্য পরিষদের ডাকা শ্রমিকদের অবরোধের ফলে খুলনা-যশোর এবং ঢাকার সঙ্গে সড়ক ও রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

Khulna Jute Mill

খুলনা অঞ্চলের পাটকল শ্রমিকদের সড়ক-রেলপথ অবরোধ চলছে। ছবি: শিউলী রহমান

আন্দোলনরত শ্রমিক নেতারা জানান, গতকাল মঙ্গলবার আন্দোলনের বাইরে থাকা নেতা এবং সরকার দলীয় শ্রমিক সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে বিকেলে দুই ঘণ্টা বৈঠক করেছেন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ও সচিব। ওই বৈঠকে অংশ নিতে ৭ মিলের বাংলাদেশ রাষ্ট্রায়ত্ত জুটমিল সিবিএ-ননসিবিএ ঐক্য পরিষদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ঢাকা গেছেন। তবে তাদের সঙ্গে বৈঠক করেননি প্রতিমন্ত্রী। তাই অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের পাশাপাশি খুলনার রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শ্রমিকরা অবরোধও অব্যাহত রেখেছেন।

বাংলাদেশ রাষ্ট্রায়ত্ব জুটমিল সিবিএ-ননসিবিএ ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক মো. সোহরাব হোসেন বলেন, খুলনা জোনের আন্দোলনরত শ্রমিকদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে গত সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে এক হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দিতে অর্থ মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পয়লা বৈশাখের আগেই শ্রমিকদের বকেয়া মজুরিসহ পাওনা পরিশোধের জন্য ৩০০ কোটি টাকা দিতে বলেন তিনি। এর আগেও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে এ ধরনের নির্দেশনা দেওয়া হলেও আমার কোনো টাকা পাইনি। তাই এবার মিলের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা না আসা পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

তিনি জানান, গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় বৈঠকের কথা বলে খুলনার ৭ জুট মিলের শ্রমিক নেতাদের ঢাকা ডেকেছিলেন পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম। ঠিক সময়ে শ্রমিক নেতারা সচিবালয়ে পৌঁছালেও তাদের বাদ দিয়েই আন্দোলনের বাইরে থাকা ১৮টি পাটকলের শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে দুই ঘণ্টা বৈঠক করেন প্রতিমন্ত্রী ও সচিব। ওসব নেতাদের বেশিরভাগই সরকার দলীয় শ্রমিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত।

সোহরাব হোসেন বলেন, গতকাল মঙ্গলবারের বৈঠকের পর খুলনাঞ্চলের পাটকল শ্রমিক নেতারা মন্ত্রীর সঙ্গে বসতে চাইলে মির্জা আজম তাদের আজ বুধবার দুপুর আড়াইটায় সময় দেন।

Khulna Jute Mill

খুলনা অঞ্চলের পাটকল শ্রমিকদের সড়ক-রেলপথ অবরোধ চলছে। আজ বুধবার সকালে পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজমের কুশপুত্তলিকা আগুন দেয় পাটকল শ্রমিকরা। ছবি: শিউলী রহমান

এদিকে শ্রমিক নেতাদের একাংশের সঙ্গে বৈঠক শেষে পাটকল শ্রমিকদের দুই সপ্তাহের মজুরি প্রদান সাপেক্ষে কাজে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানান পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম। কাজে যোগ না দিলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রীর এমন বক্তব্যে খুলনার আন্দোলনরত শ্রমিকদের মধ্যে ক্ষোভের দানা বাঁধে। এর পরিপ্রেক্ষিতে আজ অবরোধ চলাকালে সমাবেশে শ্রমিকরা প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানান। কয়েক দফায় মির্জা আজমের কুশপুত্তলিকায় ঝাড়ু, জুতা নিক্ষেপ ও জুতার মালা দেন শ্রমিকরা।

অর্থসূচক/শিউলী/এসএম/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ