রিজার্ভের টাকা ফেরত পেতে ‘সময়’ লাগবে
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

রিজার্ভের টাকা ফেরত পেতে ‘সময়’ লাগবে

ফিলিপাইনের ক্যাসিনো জাঙ্কেট অপারেটর কিম অংয়ের ফেরত দেওয়া বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের টাকা পেতে আরেকটু সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রদূত জন গোমেজ। তিনি বলেছেন, এ টাকা উদ্ধারে তার টিম এন্টিমানি লন্ডারিং কাউন্সিলের সঙ্গে কাজ করছে।

গতকাল ফিলিপাইনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত জন গোমেজ অংয়ের দুই ধাপে দেওয়া ৪৬ লাখ ৩০ হাজার ডলার ও ৮ লাখ ৩০ হাজার ডলার অর্থ দ্রুত ফেরত চেয়েছেন।

অং এন্টি মানি লন্ডারিং কাউন্সিলকে মোট ৫.৪৬ মিলিয়ন ডলার হস্তান্তর করেছেন; যা লোপাট যাওয়া ৮১ মিলিয়ন ডলারের মাত্র ৭ শতাংশ।

নিরাপত্তার খাতিরে অং এন্টি মানি লন্ডারিং কাউন্সিলকে মোট ৫.৪৬ মিলিয়ন ডলার হস্তান্তর করেছেন; যা লোপাট যাওয়া ৮১ মিলিয়ন ডলারের মাত্র ৭ শতাংশ।

সংবাদ মাধ্যম র‌্যাপলারকে দেওয়া এক ক্ষুদেবার্তায় গোমেজ বলেছেন, বাংলাদেশ সরকারের এই অর্থ ফেরত পেতে আরেকটু সময় লাগবে। তবে আমরা এন্টি-মানি লন্ডারিং কাউন্সিলের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছি। এ নিয়ে কাউন্সিলের সঙ্গে আমাদের বৈঠক হবে।

বাঁ থেকে তৃতীয় জন গোমেজ

বাঁ থেকে তৃতীয় জন গোমেজ

প্রসঙ্গত, গত ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে নিউইয়র্ক ফেডারেল রিজার্ভের বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট থেকে ১০১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার শ্রীলঙ্কা ও ফিলিপাইনে স্থানান্তরিত করে দুর্বৃত্তরা। এর প্রায় একমাস পরে ফিলিপাইনের ইনকোয়ারার পত্রিকায় অর্থ পাচার সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশের রিজার্ভ চুরির বিষয়টি ফাঁস হয়। এ ঘটনার জের ধরে গভর্নর পদ থেকে সরে দাঁড়ান আতিউর রহমান। একইসাথে আবুল কাশেম ও নাজনীন সুলতানাকে ডেপুটি গভর্নরের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

চুরি হওয়া রিজার্ভের মধ্যে শ্রীলঙ্কায় স্থানান্তরিত ২০ মিলিয়র ডলারের পুরোটা এবং ফিলিপাইনে স্থানান্তরিত ৮১ মিলিয়ন ডলারের কিছু অংশ ইতোমধ্যে এন্টি মানি লন্ডারিং কাউন্সিলের কাছে ফেরত দিয়েছেন অং।

গোমেজ জানান, অর্থ ফেরত পাওয়ার প্রক্রিয়া সঠিকপথেই হচ্ছে।

অর্থসূচক/শাহীন

এই বিভাগের আরো সংবাদ