‘শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের উন্নয়নে করার আছে অনেক কিছু’
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » লিড নিউজ

‘শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের উন্নয়নে করার আছে অনেক কিছু’

বাংলাদেশ নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হলেও শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের উন্নয়নের জন্য এখনও অনেক কিছু করার আছে বলে জানিয়েছেন পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জামান আহমদ।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘খাদ্য অধিকার ও নিরাপদ খাদ্য’ শীর্ষক এক মত বিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে 'খাদ্য অধিকার ও নিরাপদ খাদ্য' শীর্ষক এক মত বিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। ছবি মহুবার রহমান।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘খাদ্য অধিকার ও নিরাপদ খাদ্য’ শীর্ষক এক মত বিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। ছবি মহুবার রহমান।

সভার আয়োজন করে বেসরকারি সংস্থা খাদ্য অধিকার বাংলাদেশ, গ্রো এবং অক্সফাম।

ড. কাজী খলীকুজ্জামান বলেন, আমরা নিম্ন মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হলেও শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের উন্নয়নের জন্য এখনও অনেক কিছু করার আছে। খাদ্যে ভেজাল দূর করতে হলে নৈতিকার উন্নয়ন করতে হবে। আর সেজন্য দরকার শিক্ষা, বিশেষত নৈতিক শিক্ষার বিস্তার।

তিনি বলেন, শিক্ষানীতি যে নৈতিক শিক্ষার বিকাশের কথা বলে; তার সঠিক বাস্তবায়ন করতে হবে। কারণ সব কিছুর মূলে মানুষ।

খাদ্যের উদ্বৃত্ত থাকলেও নিরাপদ খাদ্য সরবরাহ এখন চ্যালেঞ্জ বলে মনে করেন এই অর্থনীতিবিদ।

এসময় খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সংসদ সদস্য আব্দুল ওয়াদুদ খাদ্যে ভেজাল নির্মূলে জনগণের মাঝে ব্যাপক সচেতনতা বৃদ্ধি ও নিরাপদ খাদ্য আইন বাস্তবায়নের উপর জোর দেওয়ার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, পুষ্টিকর খাদ্য নিশ্চিতে জনগণের সচেতনতা বৃদ্ধি খুবই জরুরি, এজন্য প্রয়োজনে গ্রামে গ্রামে মাইকিং করতে হবে। নিরাপদ খাদ্য অধিকার আইন বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে ইতোমধ্যে চুয়াল্লিশটি ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিভিন্ন কাজ বাস্তবায়নে আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কথা তুলে ধরে তিনি আরও বলেন, খাদ্যে ভেজাল নির্মূলে বাংলাদেশ সারা বিশ্বে নজির স্থাপন করেছে। দেশের প্রতিটি নাগরিক যেন নিরাপদ খাদ্য পায় তা নিশ্চিতকরণে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। কিন্তু বিগত সময়ের সরকার খাদ্য স্বয়ংসম্পূর্ণতা বিষয়টির উপর গুরুত্ব দেয়নি।

মতবিনিময় সভায় প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন খাদ্য অধিকার বাংলাদেশের সম্পাদক মহসিন আলী।

এসময় আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওষুধ প্রযুক্তি বিভাগের অধ্যাপক ড. আ ব ম ফারুক, অক্সফামের ‘উইন এন্ড কমিউনিকেশন’ প্রকল্পের ম্যানেজার নুরুল আমিন, বাংলাদেশ সেইভ এগ্রো ফুড এফোর্টসের (বিএসএএফই) সভাপতি ড. জয়নাল আবেদীন, ব্রিটিশ কাউন্সিলের ‘প্রকাশ’ টিম লিডার ক্যাথরিন সিসিল।

অর্থসূচক/মাইদুল/শাহীন

এই বিভাগের আরো সংবাদ