রিজার্ভ চুরির ঘটনায় ঢাকায় সিস্টেম পরীক্ষা করছে সুইফট
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » ব্যাংক-বিমা

রিজার্ভ চুরির ঘটনায় ঢাকায় সিস্টেম পরীক্ষা করছে সুইফট

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনা তদন্তে সোসাইটি ফর ওয়ার্ল্ডওয়াইড ইন্টারব্যাংক ফাইন্যান্সিয়াল টেলিকমিউনিকেশনের (সুইফট) দুই কর্মকর্তা ঢাকায় তাদের সিস্টেম পরীক্ষা করছেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র শুভংকর সাহা আজ শনিবার সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তিনি জানান, রিজার্ভের অর্থ কীভাবে সরানো হয়েছে বা এই অর্থ সরাতে সুফইট মেসেজ কীভাবে ব্যবহার হয়েছে- তা পরীক্ষা করবেন সুইফটের দুই কর্মকর্তা। এছাড়া ঢাকায় সুইফট সিস্টেমে কোনো ত্রুটি থাকলে তা সারাতে এবং প্রয়োজনীয় আপগ্রেডেশনের কাজ করছেন তারা।

ওই দুই কর্মকর্তার নাম-পরিচয় গোপন রেখেই শুভঙ্কর সাহা বলেন, গত বৃহস্পতিবার তারা দুইজন ঢাকায় পৌঁছেছেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা জানান, সুইফটের প্রতিনিধিরা নিজেদের সিস্টেম পর্যবেক্ষণের পাশাপাশি বাংলাদেশ ব্যাংক ও সরকার গঠিত তদন্ত দলের সঙ্গেও বৈঠক করবে।

প্রসঙ্গত, সারা বিশ্বের কেন্দ্রীয় ও বাণিজ্যিক ব্যাংকের আন্তর্জাতিক লেনদেনের মাধ্যম সুইফট। ভিন্ন দুটি দেশের মধ্যে অর্থ স্থানান্তর করতে কেন্দ্রীয় ও বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে সুইফটে পৃথক কোড রয়েছে। সিস্টেম ব্যবহারের জন্য গোপান নাম্বারও (পিন) দেওয়া হয়।

রিজার্ভের অর্থ কীভাবে সরানো হয়েছে বা এই অর্থ সরাতে সুফইট মেসেজ কীভাবে ব্যবহার হয়েছে- তা পরীক্ষা করবেন সুইফটের দুই কর্মকর্তা। এছাড়া ঢাকায় সুইফট সিস্টেমে কোনো ত্রুটি থাকলে তা সারাতে এবং প্রয়োজনীয় আপগ্রেডেশনের কাজ করছেন তারা।

গত মাসে সুইফট মেসেজ পাঠিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউ ইয়র্কে থাকা বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট থেকে ফিলিপাইন ও শ্রীলঙ্কায় ১০ কোটি ডলার সরানো হয়।

রিজার্ভ চুরির পর ব্যর্থতার দায় নিয়ে গত ১৫ মার্চ মঙ্গলবার গভর্নর পদ থেকে সরে দাঁড়ান ড. আতিউর রহমান। অন্যদিকে একই দিনে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত জানান, এ ঘটনায় আবুল কাশেম ও নাজনীন সুলতানাকেও ডেপুটি গভর্নরের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ব্যাংক থেকে বাংলাদেশের অর্থ চুরির এই ঘটনা দেশটির কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এফবিআই তদন্ত করছে বলে জানিয়েছে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল।

অর্থসূচক/বিএন/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ