বাংলাদেশ-নেপালের মধ্যে তথ্য বিনিময় চুক্তি
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » বিবিধ

বাংলাদেশ-নেপালের মধ্যে তথ্য বিনিময় চুক্তি

বাংলাদেশে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও দ্রুত বিকাশ লাভ দক্ষিণ এশিয়ার জন্য একটি দৃষ্টান্ত বলে উল্লেখ করেছেন নেপালের তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রী শ্রেধান রাই।

গতকাল শুক্রবার নেপালের রাজধানী কাঠমাণ্ডুতে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর সঙ্গে এক বৈঠকে এ কথা বলেন তিনি। নেপালে দুইদিনের সফরের শেষদিনে সেই দেশের তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তিনি। দুই দেশের জনগণের মধ্যে তথ্য ও সংবাদ আদান-প্রদান বাড়াতে সরকার নিয়ন্ত্রিত সংবাদমাধ্যমের সংবাদ, তথ্য এবং পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়ানোর লক্ষ্যে একটি চুক্তি সই হয়েছে।

এসময় বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের মাধ্যমে নেপালের সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণে সহযোগিতার প্রস্তাব দেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তার প্রস্তাবে রাজি হয়ে উভয় দেশের সাংবাদিকদের সফর বিনিময়ের বিষয়ে নীতিগতভাবে একমত হন দুই দেশের মন্ত্রী।

Sherdhan Rai and Hasanul Haq Inu sign agreement

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুকে ফূল দিয়ে স্বাগত জানান নেপালের তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রী শ্রেধান রাই।

নেপালে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাশফি বিনতে শামস, জাসদের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক শামীম আহমেদ, বাংলাদেশ দূতাবাসের দূতালয় প্রধান মোহাম্মদ বারিকুল ইসলাম এবং নেপালের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে নেপালের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাধব কুমারের সঙ্গে বৈঠক করেন বাংলাদেশের তথ্যমন্ত্রী। এসময় দু দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ককে আরও এগিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে আন্তঃসীমান্ত পণ্য পরিবহন, বিদ্যুৎ খাতে সহযোগিতা, পর্যটনের প্রসার ও দু দেশের মধ্যে তথ্য ও সংবাদ আদান প্রদানের বিষয়ে আলোচনা করেন তারা। নেপালের সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী সুনীল থাপার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হন হাসানুল হক ইনু।

অন্যদিকে গতকাল দুপুরে কাঠমাণ্ডুতে ‘রিপোর্টার্স ক্লাব অব নেপালের সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের তথ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, বাংলাদেশে গণমাধ্যমের আজকের বহুল প্রসার কোনো এলোমেলো যথেচ্ছাচার নয়। এর মূলে রয়েছে সরকারের আন্তরিকতা ও নিয়মনীতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল উদ্যোক্তাদের জবাবদিহিতামূলক প্রতিষ্ঠানিক প্রক্রিয়া।

মন্ত্রী বলেন, দুই হাজারের বেশি সংবাদপত্রের পাশাপাশি বেসরকারি খাতে টেলিভিশন, রেডিও, কমিউনিটি রেডিও ও অনলাইন গণমাধ্যমের বিকাশ সাধনে সরকার অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে, যা দেশের গণতন্ত্রকে সুসংহত এবং আরও জবাবদিহিমূলক করবে।

নেপালি কংগ্রেস দলের ১৩তম মহাসম্মেলনে অতিথি হিসেবে বক্তব্য দিতে গত বুধবার কাঠমাণ্ডুতে পৌঁছান তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে নেপালের রাজধানী কাঠমাণ্ডুতে নেপালি কংগ্রেসে বক্তব্য দেন তিনি। দক্ষিণ এশিয়ার উন্নয়নে ‘গঙ্গা-হিমালয়-বদ্বীপ সমন্বিত পরিকল্পনা’র বিষয়ে কাজ করার আহ্বান জানান মন্ত্রী। ওই দিন সকালে নেপালের প্রধানমন্ত্রী খড়গ প্রসাদ শর্মা ওলীর সঙ্গেও সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হন তথ্যমন্ত্রী।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ