একুশে বইমেলা: প্রকাশের শীর্ষে কবিতা, চাহিদায় উপন্যাস
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » বই মেলা

একুশে বইমেলা: প্রকাশের শীর্ষে কবিতা, চাহিদায় উপন্যাস

বিদায়ের সুর বেজে উঠেছে বাঙ্গালির একমাসের মিলনমেলা অমর একুশে বইমেলার। এখন ব্যবধান কেবল একটা দিনের। এরপরেই নিরব হয়ে যাবে প্রাণের এই উচ্ছ্বলতা। আর তাই শেষবারের মত অনেকেই ছুটে আসছেন বইমেলায়। নানা ব্যস্ততার কারণে যারা সংগ্রহ করতে পারেননি প্রিয় লেখকের বই; শেষ সময়ে এসে তা সংগ্রহের চেষ্টা করছেন।

Book Fair2বাংলা একাডেমির তথ্য পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, মাসজুড়ে চলা এই বইমেলায় প্রতিবারের মতো এবারও প্রকাশের শীর্ষে রয়েছে কাব্যগ্রন্থ। মেলার ২৮তম দিনের হিসাব অনুযায়ী এ সংখ্যা মোট ৯০৯টি। তবে প্রকাশকরা বলছেন, পাঠকদের চাহিদার দিক বিবেচনা করলে শীর্ষস্থানে রয়েছে উপন্যাস।

পাঠকের মধ্যে উপন্যাসের চাহিদা কতটুকু এটি জানতে মেলায় অংশ নেওয়া প্রকাশনা সংস্থাগুলোর মধ্যে অন্যপ্রকাশ, অনন্যা, তাম্রলিপি, পাঞ্জেরী, সময় প্রকাশনসহ স্বনামধন্য প্রকাশনা সংস্থার স্টলগুলোতে কিছুক্ষণ দাঁড়ালেই যেন তার বাস্তব চিত্র ফুটে ওঠে। বইমেলার প্রায় শুরু থেকেই শত শত মানুষের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ করা গেছে এসব এসব স্টলে। বই কেনার জন্য প্রতি মুহুর্তে চলেছে হৈ-হুল্লোড়।

এছাড়া ইত্যাদি গ্রন্থপ্রকাশ, শুদ্ধস্বর, বিদ্যাপ্রকাশ, ঐতিহ্য, পার্ল পাবলিকেশন, অন্বেষা, জাগৃতি, আগামী প্রকাশনীর স্টলগুলোতে উপন্যাস কেনার জন্য উপচে পড়া ভিড়ও লক্ষ্য করার মতো।

হুমায়ুন আহমেদ পাঠকদের মাঝে নেই। তাতে কি! অন্যপ্রকাশ স্টলে পাওয়া যাচ্ছে তার বই। আর তাই মেলার শুরু থেকেই অন্যপ্রকাশের স্টলে লক্ষ্য করা গেছে ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড়। হুমায়ুন আহমেদের পুরাতন বইগুলোই নতুন রূপে পাঠকের কাছে তুলে দিচ্ছে অন্যপ্রকাশ। এবার জনপ্রিয় এই লেখকের হিমুসমগ্র ছাড়াও হরিশংকর জলদাসের ‘একলব্য’ নামে একটি উপন্যাস এনেছে অন্যপ্রকাশ।

অন্যপ্রকাশের জনসংযোগ কর্মকর্তা তুসার খান তুহিন অর্থসূচককে বলেন, মেলার শুরু থেকেই পাঠকের উপস্থিতি ছিল আমাদের প্রত্যাশার অনুরূপ। প্রতিদিনই প্রচুর পাঠক এসেছেন। এর মধ্যে তরুণ-তরুণীর সংখ্যাই বেশি।

এ প্রসঙ্গে অন্যপ্রকাশের প্রধান নির্বাহী মাজহারুল ইসলাম বলেন, প্রতি বছরই নতুন নতুন পাঠক তৈরি হয় যারা মূলত তরুণ। ফলে হুমায়ূন আহমেদকে তার লেখনির মাধ্যমেই তারা জানতে চায়। ফলে হুমায়ূন রচনাসমগ্র বেশ বিক্রি হয়েছে। তাছাড়া অন্য উপন্যাসগুলোর চাহিদাও বেশি।

অন্যদিকে অনন্যা থেকে ইমদাদুল হক মিলনের ‘জিন্দাবাহার’ এর চাহিদা বেশ চোখে পড়েছে। এছাড়াও তার নূরজাহানের তিনটি পর্বের চাহিদা বেশি বলে জানান প্রকাশনীর একাধিক বিক্রয় প্রতিনিধি।

বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত নজরুল ইসলাম জানালেন, এবার নতুন কিছু লেখকের উপন্যাস কেনা হয়েছে। পরিচিত কয়েক লেখকের বই মেলার শেষ দিকে প্রকাশিত হয়েছে। সেগুলো থেকে কয়েকটা কিনতে মেলায় আসা।

বাংলা একাডেমির হিসাব অনুযায়ী এবারের মেলায় প্রকাশিত উপন্যাসের সংখ্যা মোট ৫১৮টি।

এছাড়া বিভিন্ন ধরনের বই মিলিয়ে গ্রন্থমেলায় মোট ৩ হাজার ৩০৪টি বই প্রকাশ হয়েছে। যার মধ্যে গল্পের বই ৪৮৬টি, প্রবন্ধ ১৮৫টি, গবেষণা ৩৬টি, ছড়া ১০৬টি, শিশুতোষ ১৪৮টি, জীবনী ৭৫টি, রচনাবলী ১২টি, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক ৯৮টি, নাটক ১১টি, বিজ্ঞান ৫১টি, ভ্রমণ কাহিনী ৫২টি, ইতিহাস ৪৪টি, রাজনীতি ১৫টি, চিকিৎসা ২৩টি, কম্পিউটার ৯টি, রম্য/ধাঁধা ১৮টি, ধর্মীয় ২৮টি, অনুবাদ ২১টি, অভিধান ৬টি, সায়েন্স ফিকশন ৪৫টি এবং অন্যান্য ৪০৫টি।

শেষ দিনের মেলা

আগামীকাল শেষ হচ্ছে অমর একুশে বইমেলা। শেষ দিনে মেলার দ্বার খুলবে বেলা ১টায়। চলবে যথারীতি ৮টা পর্যন্ত।

এছাড়া সন্ধ্যায় রয়েছে সমাপনী আয়োজন। এতে প্রধান অতিথির থাকবেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। অনুষ্ঠানে প্রবাসে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের চর্চায় অবদানের জন্য ফরাসি গবেষক ও অনুবাদক ফ্রাঁস ভট্টাচার্য ও প্রবাসী বাঙালি কথাশিল্পী মন্জু ইসলামকে সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্ পুরস্কার-২০১৫ আনুষ্ঠানিকভাবে প্রদান করা হবে।

এছাড়াও চিত্তরঞ্জন সাহা স্মৃতি পুরস্কার, মুনীর চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার, রোকনুজ্জামান খান দাদাভাই স্মৃতি পুরস্কার এবং শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার প্রদান করা হবে।

অর্থসূচক/এসএমএস/এসএম

এই বিভাগের আরো সংবাদ