হবিগঞ্জে ৪ শিশু হত্যায় আটক আরও ২
বুধবার, ১৫ জুলাই, ২০২০
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » অপরাধ ও আইন

হবিগঞ্জে ৪ শিশু হত্যায় আটক আরও ২

হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার সুন্দ্রাটিকি গ্রামের চার শিশু হত্যার ঘটনায় আজ শনিবার সালেহ আহমেদ (২৬) নামের সন্দেহভাজন আরেক আসামিকে আটক করেছে পুলিশ। এর আগে এই মামলায় তার ভাই বশিরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত পুলিশ ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বাহুবল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশাররফ হোসেন জানান, সালেহ আহমেদ গ্রামে ফিরলে স্থানীয় লোকজন তাকে ধাওয়া দিয়ে একটি বাড়িতে অবরুদ্ধ করে রাখে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে সালেহ আহমদকে আটক করে।

পুলিশ ও গ্রামবাসী জানান, সালেহ আহমেদ কয়েকদিন ধরে সুন্দ্রাটিকি গ্রামে ছিল না। আজ সকালে সে গ্রামে ফিরলে স্থানীয় লোকজন তাকে ধরার জন্য ধাওয়া দেয়। সালেহ তখন দৌড়ে গিয়ে মাসুদ মিয়ার বাড়িতে ঢুকে পড়ে। এরপর গ্রামবাসী ওই বাড়ি ঘেরাও করে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ গিয়ে সালেহ আহমদকে আটক করে।

এ ঘটনায় আটক অপর ব্যক্তিরা হলো- আবদুল আলী, তার দুই ছেলে জুয়েল (২০) ও রুবেল (১৮) এবং গ্রামবাসী আরজু ও বশির। আবদুল আলী গ্রামের বিভক্ত পঞ্চায়েতের এক পক্ষের নেতা।

শিশু হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া রুবেল মিয়া (১৮) স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে বলেছে, তাদের পরিবারের ওপর ক্ষোভ ও পঞ্চায়েতের দ্বন্দ্বের কারণেই সুন্দ্রাটিকি গ্রামের চার শিশুকে হত্যা করা হয়েছে। হত্যায় সরাসরি অংশ নেয় ছয়জন। শিশুদের প্রথমে অচেতন করা হয় এবং পরে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়।

রুবেলের জবানবন্দি অনুযায়ী এই নারকীয় হত্যাকাণ্ডে মুখ্য ভূমিকায় ছিল গ্রামের অটোরিকশার চালক বাচ্চু মিয়া। শিশুদের পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠদের ওপর তার ক্ষোভ ছিল।

পুলিশ বলেছে, বাচ্চু মিয়াকে তারা গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

তবে বাচ্চু মিয়ার পরিবার দাবি করেছে, গত বুধবার তাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। অবশ্য এ বিষয়ে কিছু বলতে রাজি হয়নি র‌্যাব।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ