ব্যাংকের নিরাপত্তায় দুর্বলতা থাকলে ব্যবস্থা
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » ব্যাংক-বিমা

ব্যাংকের নিরাপত্তায় দুর্বলতা থাকলে ব্যবস্থা

ইষ্টার্ণ ব্যাংক লিমিটেডের (ইবিএল) গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা বেহাত হওয়ার ঘটনা তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস.কে. সুর চৌধুরী। তিনি জানান, এ ঘটনায় ব্যাংকের যদি নিরাপত্তাজনিত কোনো দুর্বলতা পাওয়া যায়, তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আজ শনিবার রাজধানীর একটি হোটেলে ফিন্যান্সিয়াল ইনক্লুশন সম্পর্কিত সেমিনার শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

ডেপুটি গভর্নর বলেন, আমানত গেলে তা অবশ্যই উদ্বেগের কারণ। তদন্ত না হলে আসলে কী ঘটেছে বা কীভাবে ঘটেছে- তার সম্পর্কে স্পষ্ট কিছু জানা যাবে না। এ জন্য টাকা বেহাত হওয়ার কারণ জানতে নিজেদের মতো করে তদন্ত করছে ইবিএল। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকও তদন্ত করছে।

তদন্তের জন্য কমিটি গঠন বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আলাদা করে কোনো তদন্ত কমিটি গঠন করতে হয় না। কারণ যখনই ব্যাংকগুলোতে চুরি বা ডাকাতির ঘটনা ঘটে সেটাকে খুঁজে বের করতে সবসময় অন সাইড ইন্সপেকশন করার জন্য টিম রয়েছে। আলাদা কমিটি করার প্রয়োজন পড়ে না।

আমানত গেলে তা অবশ্যই উদ্বেগের কারণ। তদন্ত না হলে আসলে কী ঘটেছে বা কীভাবে ঘটেছে- তার সম্পর্কে স্পষ্ট কিছু জানা যাবে না। এ জন্য টাকা বেহাত হওয়ার কারণ জানতে নিজেদের মতো করে তদন্ত করছে ইবিএল। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকও তদন্ত করছে।

এস.কে. সুর জানান, বুথ ব্যবহার করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় সবগুলো ব্যাংকের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে। এতে তাদেরকে সতর্ক করা হয়েছে। যাতে এ ধরণের ঘটনা প্রতিরোধে ব্যবস্থা নিতে পারে।

তিনি বলেন, তদন্তের পর যাদেরকে দায়ী হিসেবে পাওয়া যাবে তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কোনো ব্যাংকের যদি নিরাপত্তাজনিত ঘাটতি পাওয়া যায়, তবে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গতকাল শুক্রবার ইস্টার্ণ ব্যাংক লিমিটেডের এটিএম কার্ডধারী কয়েকজন গ্রাহকের হিসাব থেকে টাকা উধাও হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এর আগে ২০১৫ সালের মে মাসে মিরপুরের একজন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তার অভিযোগের তদন্ত করতে গিয়ে কার্ড ক্লোনিংয়ের বিষয়টি গোয়েন্দাদের নজরে আসে। সে সময় গোয়েন্দারা জানান, জালিয়াত চক্র ক্রেডিট কার্ড তৈরির মাল এবং বিশেষ ধরনের যন্ত্র তারা বুলগেরিয়া এবং ইংল্যান্ড থেকে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে নিয়ে আসে। ওই চক্রের সঙ্গে ইংল্যান্ড, কানাডা এবং বুলগেরিয়ার জালিয়াত চক্রের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রয়েছে।

অর্থসূচক/এমবি/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ