এম.এ. লতিফের বিরুদ্ধে আরও ২টি মামলা
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » জাতীয়

এম.এ. লতিফের বিরুদ্ধে আরও ২টি মামলা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি বিকৃতির অভিযোগে চট্টগ্রামের সংসদ সদস্য এম.এ. লতিফের বিরুদ্ধে আরও ২টি মামলা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম ফরিদ আলমের আদালতে রাষ্ট্রদ্রোহ ও তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা দুটি করা হয়।

রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে করা মামলার বাদি হলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এ.কে.এম. বেলায়েত হোসেন। আর তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলাটি করেন যুবলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা সাইফুদ্দিন আহমেদ রবি।

চট্টগ্রাম আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মো. ফখরুদ্দিন জানান, মামলা দুটি আদেশের জন্য অপেক্ষমাণ রেখেছে আদালত।

৫৭ ধারার মামলায় বাদিপক্ষের আইনজীবী ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী জানান, আদালত মামলাটি গ্রহণ করেছে। পরে এ ব্যাপারে আদেশ দেবেন বলে জানানো হয়েছে।

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বাদিপক্ষের আইনজীবী রনি কুমার দে জানান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ছবি বিকৃতির অভিযোগে এম.এ. লতিফের বিরুদ্ধে ১২৪/এ ধারায় রাষ্ট্রদ্রোহের একটি মামলা দায়ের হয়েছে। মামলাটি গ্রহণের পর এ ব্যাপারে পরে আদেশ দেওয়া হবে জানিয়েছে আদালত।

এর আগে বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃতির অপরাধে লতিফের বিরুদ্ধে আরও দুটি মামলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ৩০ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম-১১ আসনের (বন্দর, হালিশহর ও পতেঙ্গা) সংসদ সদস্য এম.এ. লতিফ বন্দরনগরীর বিভিন্ন স্থানে ফেস্টুন লাগান। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতির মুখমণ্ডলের সঙ্গে লতিফের নিজের শরীর জুড়ে দিয়ে তৈরি করা হয় ফেস্টুনগুলো। সংবাদ সম্মেলনে বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃতির কথা স্বীকার করে একে ডিজাইনারের অনিচ্ছাকৃত ভুল বলে জানিয়েছেন এম.এ. লতিফ।

গত ৪ ফেব্রুয়ারি এক হাজার কোটি টাকার মানহানির অভিযোগে এম.এ. লতিফের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন যুবলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা সাইফুদ্দিন আহমেদ রবি। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে উপ-কমিশনার পদমর্যাদার একজন পুলিশ কর্মকর্তা দিয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে।

একইদিন ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুর রহিম জিল্লু বাদি হয়ে লতিফের বিরুদ্ধে আরও একটি মামলা করেন। মামলাটি তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

অর্থসূচক/ডিআর/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ