১৩ মিলিয়ন ডলার ঋণ নিচ্ছে প্রাণ  
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » কর্পোরেট সংবাদ

১৩ মিলিয়ন ডলার ঋণ নিচ্ছে প্রাণ  

দেশের শীর্ষস্থানীয় কৃষিপণ্য প্রক্রিয়াজাত ও রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান প্রাণ গ্রুপকে ১৩ মিলিয়ন ডলার ঋণ সহায়তা দিচ্ছে আন্তর্জাতিক দুই আর্থিক প্রতিষ্ঠান প্রোপারকো ও এফএমও।

চুক্তি সই অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রাণ গ্রুপ, প্রোপারকো ও এফএমও’র কর্মকর্তাবৃন্দ।ছবি সংগৃহীত

চুক্তি সই অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রাণ গ্রুপ, প্রোপারকো ও এফএমও’র কর্মকর্তাবৃন্দ।ছবি সংগৃহীত

গতকাল রাজধানীর রেডিসন হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ চুক্তি সম্পাদিত হয়।

ফ্রান্স ও নেদারল্যান্ডস ভিত্তিক আর্থিক প্রতিষ্ঠান প্রোপারকো ও এফএমও বিশ্বের উদীয়মান উন্নয়নশীল দেশগুলোতে বেসরকারি বিনিয়োগে অনুঘটক হিসেবে ও উদ্যোক্তাদের এগিয়ে নিতে কাজ করে যাচ্ছে।

প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহসান খান চৌধুরী, এফএম’র কৃষি বিভাগের প্রধান কর্মকর্তা মার্জোলিন ল্যান্ধি, প্রোপারকো এশীয় অঞ্চলের প্রধান সেবাস্টিয়ান ফ্লিউরি নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন।

চুক্তি অনুযায়ী, প্রোপারকো ও এফএমও যৌথভাবে ৮ ও ৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ঋণ সরবরাহ করবে প্রাণ এর সহযোগি প্রতিষ্ঠান ময়মনসিংহ এগ্রো লিমিটেডকে।

আহসান খান চৌধুরী জানান, পণ্যের গুনাগুণ বজায় রাখতে উন্নতমানের প্যাকেজিং ও প্রযুক্তির বিকল্প নেই। এ ঋণ সহায়তা কাজে লাগিয়ে প্যাকেজিং শিল্পে আধুনিকায়ন এবং জুস ও বেভারেজ শিল্পে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি স্থাপন করবে প্রাণ। এ সহায়তা প্রাণকে স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক পরিসরে আরও প্রতিযোগী হতে ভূমিকা রাখবে বলেও তিনি মনে করেন।

তিনি আরও জানান, আমাদের লক্ষ্য হলো বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে স্বল্পমূল্যে মানসম্পন্ন প্রক্রিয়াজাত ও প্যাকেটজাত খাদ্য সরবরাহ করা। এ লক্ষ্যে প্রাণ বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নিয়েছে। প্রোপারকো ও এফএমও’র সহযোগিতা এবং আমাদের প্রচেষ্টা সামগ্রিকভাবে দেশের কৃষিপণ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্পের উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করবে।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের পরিচালক (কর্পোরেট ফাইন্যান্স) উজমা চৌধুরী ও এফএমও’র বিনিয়োগ কর্মকর্তা ডন এ্যারেন্ডসসহ উভয় প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

প্রাণকে অর্থায়নের মাধ্যমে এ প্রতিষ্ঠান দু’টি বাংলাদেশে অর্থনৈতিক ও গ্রামীণ উন্নয়নে ভূমিকা রাখল। চুক্তি অনুযায়ী আগামী ৭ বছরে প্রতিষ্ঠান দু’টিকে এই অর্থ পরিশোধ করবে প্রাণ।

প্রতিষ্ঠান দু’টির কর্মকর্তারা জানান, প্রাণ গ্রুপের মতো একটি সুবিদিত প্রতিষ্ঠানকে সম্প্রসারণ কার্যক্রমে সহযোগিতা করতে পেরে আমরা গর্বিত।

প্রসঙ্গত, ১৯৮৫ সালে খাদ্যপণ্য প্রক্রিয়াজাতকরণের মাধ্যমে যাত্রা হয় প্রাণ-এর। বর্তমানে ১০টি ক্যাটাগরিতে ৫০০টির অধিক পণ্য উৎপাদন করছে প্রাণ। নিয়মিতভাবে বিশ্বের ১২৩টি দেশে রপ্তানি হচ্ছে প্রাণ পণ্য। গত বছরে ৫০০ মিলিয়ন ডলার অর্থ উপার্জন করেছে প্রাণ।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি/

এই বিভাগের আরো সংবাদ