আতিউর রহমানের পুনর্নিয়োগ: হঠাৎ গুজব পুঁজিবাজারে
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » পুঁজিবাজার

আতিউর রহমানের পুনর্নিয়োগ: হঠাৎ গুজব পুঁজিবাজারে

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আতিউর রহমানের পুনর্নিয়োগ নিয়ে হঠাৎ গুজব ছড়িয়ে পড়েছে পুঁজিবাজারে। আর এর প্রভাব পড়েছে বুধবারের লেনদেনে। বাজার সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, আজ বেলা ১২টার পর হঠাৎ জোর গুজব ছড়িয়ে পড়ে গভর্নর আতিউর রহমানের মেয়াদ বাড়াচ্ছে সরকার। ফলে আগামী জুলাই মাসে তার বর্তমান মেয়াদ শেষ হলে তিনি পুনর্নিয়োগ পাবেন। এ গুজবের সঙ্গে সঙ্গে বাজারের উর্ধমুখী সূচক নিম্নমুখী হতে থাকে।

মূলত ২০১০ সালে পুঁজিবাজারে ব্যাংকের অতিরিক্ত বিনিয়োগ রাতারাতি কমিয়ে আনার নির্দেশ দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। ওই বছর বাজারে নেমে আসা ধসের অনেকগুলো কারণের মধ্যে এ নির্দেশনাকে প্রধান কারণ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। আর তখন থেকে বিনিয়োগকারীদের একটি বড় অংশ বাংলাদেশ ব্যাংক, বিশেষ করে গভর্নর আতিউর রহমানকে বাজারের প্রতিপক্ষ হিসেবে ভাবছে। তাদের অনেকে বিশ্বাস করেন, গভর্নর পদে কোনো পরিবর্তন এলে বাংলাদেশ ব্যাংক হয়ত কিছুটা পুঁজিবাজারবান্ধব হবে। সে কারণেই ড. আতিউরের পুনর্নিয়োগের গুজবের নেতিবাচক প্রভাব পড়ে বাজারে।

আগামী ২ আগস্ট আতিউর রহমানের বয়স ৬৫ বছর হবে। বিধি অনুসারে ৬৫ বছরের বেশি বয়সী কারো পক্ষে গভর্নর হওয়া সম্ভব নয়। 

এদিকে গভর্নর পদে ড. আতিউরের পুনর্নিয়োগের খবরটি গুজব বলে জানিয়েছে অর্থমন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র। সূত্র জানিয়েছে, আগামী জুলাই পর্যন্ত তার মেয়াদ আছে। তাই এখনই সরকার বিষয়টি নিয়ে ভাবছে না।

সূত্র জানায়, আগামী ২ আগস্ট আতিউর রহমানের বয়স ৬৫ বছর হবে। বিধি অনুসারে ৬৫ বছরের বেশি বয়সী কারো পক্ষে গভর্নর হওয়া সম্ভব নয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন মার্চেন্ট ব্যাংকার অর্থসূচককে বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের সদ্য বিদায়ী তিন ডেপুটি গভর্নরের চুক্তির মেয়াদ বাড়ানো সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব সরকারের বিবেচনাধীন আছে। সরকার তাদেরকে পুনর্নিয়োগ দিতে যাচ্ছে বলে আভাস পাওয়া যাচ্ছে। এ বিষয়টিকে সামনে রেখে একটি স্বার্থান্বেষী মহল গভর্নরের পুনর্নিয়োগের ওই গুজব ছড়িয়ে থাকতে পারে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ