মিটারে চলছে না চট্টগ্রামের সিএনজি অটোরিকশা
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » চট্টগ্রাম ও বন্দর

মিটারে চলছে না চট্টগ্রামের সিএনজি অটোরিকশা

চট্টগ্রামে ১ ফেব্রুয়ারি থেকে বাধ্যতামূলকভাবে মিটারে সিএনজি অটোরিকশা চলাচলের আদেশ দিয়েছিল চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি)। তবে নিয়মের তোয়াক্কা করছে না নগরীর অটোরিকশা চালকরা। সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন সড়কে চলাচলকারী অটোরিকশার প্রায় সবগুলোতেই মিটার বন্ধ রাখতে দেখা গেছে। আবার অনেক অটোরিকশায় এখনও মিটার লাগানোই হয়নি।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ঘোষণার পর নগরীর সব সিএনজি অটোরিকশায় মিটার সংযোজনের জন্য কঠিন হুঁশিয়ারি দিয়েছিল সিএমপি। আজ সোমবার থেকে মিটার অনুযায়ী ভাড়া আদায়ও বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল। তবে এর তোয়াক্কা করছেন না অটোরিকশা চালকরা। এতে নগরীর বিভিন্ন স্থানে চালকদের সঙ্গে যাত্রীদের বাক-বিতণ্ডার ঘটনাও ঘটেছে। চালকদের অনিয়ম ঠেকাতে সকাল থেকে প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত নগরীর কোথাও পুলিশের পর্যবেক্ষণ দলও বসানো হয়নি।

সরজমিনে দেখা গেছে, আজ সোমবার নগরীর আগ্রাবাদ, জিইসি, মুরাদপুর, হালিশহর, নিউমার্কেট, কাজির দেউরী, চকবাজার, টাইগারপাস, ইস্পাহানি, ২ নম্বর গেটসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রচুর সিএনজি অটোরিকশা চলছে। তবে এর কোনোটিই মিটারে চালাচ্ছেন না চালকরা। বরং যাত্রীদের কাছ থেকে ইচ্ছেমতো ভাড়া আদায় করছেন তারা। এছাড়া বেশিরভাগ অটোরিকশায় এখন পর্যন্ত মিটারও সংযোজন করা হয়নি।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ঘোষণার পর নগরীর সব সিএনজি অটোরিকশায় মিটার সংযোজনের জন্য কঠিন হুঁশিয়ারি দিয়েছিল সিএমপি। আজ সোমবার থেকে মিটার অনুযায়ী ভাড়া আদায়ও বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল। তবে এর তোয়াক্কা করছেন না অটোরিকশা চালকরা। এতে নগরীর বিভিন্ন স্থানে চালকদের সঙ্গে যাত্রীদের বাক-বিতণ্ডার ঘটনাও ঘটেছে। চালকদের অনিয়ম ঠেকাতে সকাল থেকে প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত নগরীর কোথাও পুলিশের পর্যবেক্ষণ দলও বসানো হয়নি।

৩ মাস আগে থেকে নগরীতে মিটারে অটোরিকশা চলাচল বাধ্যতামূলক ঘোষণা করা হলেও মিটার সংযোজনের জন্য কয়েকবার সময় বাড়ানো হয়। সর্বশেষ ১ ফেব্রুয়ারি থেকে মিটারে অটোরিকশা চলাচলের বিষয়ে অনড় অবস্থান নেওযার ঘোষণা দেয় পুলিশ। আজ থেকে চট্টগ্রামে মিটারে অটোরিকশা চলাচল বাধ্যতামূলক করতে মিটার সংযোজনের জন্য মালিক-চালকদের গতকাল রোববার (৩১ জানুয়ারি) পর্যন্ত সময় দিয়েছিল সিএমপি।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (প্রশাসন, অর্থ ও ট্রাফিক) এ.কে.এম. শহীদুর রহমান অর্থসূচককে বলেন, অটোরিকশাগুলো মিটারে চলছে না- এমন অভিযোগ আমাদের কাছে এসেছে। এসএসসি পরীক্ষার্থীদের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে আমরা সকাল থেকে অভিযান শুরু করিনি। তবে দ্রুত অভিযানে নামছি।

তিনি জানান, মিটারে অটোরিকশা চলাচলে বাধ্য করতে ৫টি টিম গঠন করা হয়েছে। প্রত্যেক টিমে একজন সার্জেন্ট অথবা একজন ট্রাফিক পরিদর্শকের নেতৃত্বে ৮ জন করে সদস্য রাখা হয়েছে। দুপুর ৩টা থেকে ওইটিমগুলো সারা শহরে একযোগে অভিযান পরিচালনা করবে। মনিটরিংয়ের জন্য আমরাও রাস্তায় থাকব। যারা মিটারে যেতে চাইবে না- তাদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

গতকাল রোববার চট্টগ্রাম চেম্বারের এক অনুষ্ঠানে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, চট্টগ্রামে মিটার চালু হওয়ার কথা ছিল নভেম্বরে। অনুরোধের কারণে সময় বাড়ানো হয়েছিল। সোমবার থেকে চট্টগ্রামে মিটারে চলবে সিএনজি অটোরিকশা। এর কোনো ব্যতিক্রম হবে না। সময় আর বাড়ানো হবে না। একে আমি চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি।

এর আগে ২০১৫ সালের ১৫ ডিসেম্বর নগর পুলিশের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছিল, সরকার নির্ধারিত ভাড়া হিসেবে সিএনজি অটোরিকশা চালকরা প্রথম ২ কিলোমিটার ৪০ টাকা এবং পরবর্তী প্রতি কিলোমিটার ১২ টাকা করে আদায় করতে পারবে। বিরতিকালের জন্য ভাড়া প্রতি মিনিটে ২ টাকা। যেকোনো দূরত্বে যাত্রী পরিবহনে বাধ্যতামূলক সর্বনিম্ন ভাড়া ৪০ টাকা আদায় করা যাবে।

সরকার নির্ধারিত ভাড়া যদি সিএনজি অটোরিকশা চালকরা না মানে তবে ট্রাফিক পুলিশ কন্ট্রোল কক্ষে (মোবাইল: ০১৯১৯-৯১১৯১১, ফোন- ৬১৯৮৮০) যোগাযোগের অনুরোধও জানিয়েছে সিএমপি।

এই বিভাগের আরো সংবাদ