পান্তর রেকর্ডে চ্যাম্পিয়ন হয়ে কোয়ার্টারে ভারত
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » ক্রিকেট

পান্তর রেকর্ডে চ্যাম্পিয়ন হয়ে কোয়ার্টারে ভারত

যুব বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ড ও আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে যেন রূপকথার মতো উড়ছিল নেপাল অনূর্ধ্ব-১৯ দল। সেই উড়ন্ত নেপালকে মাটিতে নামিয়ে আনলো ভারত যুব দল।

নেপালের উইকেট পতনের পর ভারতের এক বোলারের উল্লাস। ছবি সংগৃহীত

নেপালের উইকেট পতনের পর ভারতের এক বোলারের উল্লাস। ছবি সংগৃহীত

সোমবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নেপালকে ৭ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে ইশান কিশান বাহিনী। এ জয় দিয়ে তিন ম্যাচ জিতে পূর্ণ ছয় পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে কোয়ার্টারে উঠলো ভারত। আর তিন ম্যাচে এক হার ও দুই জয় দিয়ে চার পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হিসেবে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলবে নেপাল।

ভারতের দুর্দান্ত জয়ের দিনে নিজের হয়ে রেকর্ড গড়েছেন উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান পান্ত। যুব ওয়ানডেতে গড়েছেন দ্রুততম হাফসেঞ্চুরির রেকর্ড।

এদিন ঘন কুয়াশার কারণে সকাল ৯টার পরিবর্তে ম্যাচটি শুরু হয় সাড়ে ৯টায়। আধঘণ্টা বিলম্বিত হওয়ায় ম্যাচে দৈর্ঘ্য নেমে আসে ৪৮ ওভারে। প্রথমে ব্যাট করে সবকটি ওভার খেলে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৬৯ রান সংগ্রহ করে হিমালয় কন্যা নেপাল। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৭ রান করেন সন্দীপ সুনার। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৫ রান করেন রাজবির সিং।

ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন আভেশ কুমার। এছাড়া ২টি করে উইকেট নেন মায়াঙ্ক ডাগার ও ওয়াশিংটন সুন্দার।

১৭০ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে মাত্র ১৮.১ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে নোঙর ফেলে ভারত।

শুরুতেই ব্যাটে ঝড় তোলেন উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান পান্ত। মাত্র ১৮ বলে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করার পর ২৪ বলে ৯টি চার ও ৫টি ছক্কায় ৭৮ রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনি। বড় জয়ের ম্যাচে হাফসেঞ্চুরি করেন অধিনায়ক ইশান কিশানও। ৪০ বলে ৭ চার ও ৩ ছক্কায় ৫২ রান করেন তিনি। পান্ত, ইশানের পর স্বল্প সময়ে সাজঘরে ফেরেন রিকি ভুই। পরে চতুর্থ উইকেটে সরফরাজ খান ও আরমান জাফর দলের জয় নিশ্চিত করেন। সরফরাজ ২১ ও আরমান ১২ রান করে অপরাজিত থাকেন।

যুব ওয়ানডেতে সবচেয়ে কম বলে দ্রুততম হাফসেঞ্চুরির রেকর্ডটি এখন পান্তর। এর আগে এই রেকর্ডের মালিক ছিলেন ওয়েষ্ট ইন্ডিজের ট্রেবন গ্রিফিথ। তিনি ২০০৯-১০ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে মাত্র ১৯ বলে হাফসেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ