চট্টগ্রামে ৭ প্রতিষ্ঠানের মালিকের বিরুদ্ধে মামলা বিএসটিআইএর
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » চট্টগ্রাম ও বন্দর

চট্টগ্রামে ৭ প্রতিষ্ঠানের মালিকের বিরুদ্ধে মামলা বিএসটিআইএর

লাইসেন্স নবায়ন না করা, পণ্যের গুণগতমান যাচাই ছাড়া পণ্য বিক্রয়, উৎপাদন এবং বিতরণ করার অভিযোগে চট্টগ্রাম নগরীর পাঁচলাইশ এবং ডবলমুরিংয়ে ৭ বেকারি পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের ৮ জন মালিকের বিরুদ্ধে মামলা করেছে বিএসটিআই।

মঙ্গলবার বিএসটিআই চট্টগ্রাম অঞ্চলের কর্মকর্তা মো. সাফায়েত হোসেন বাদি হয়ে চট্টগ্রাম চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে এ মামলা দায়ের করেন।

মামলার আসামিরা হলেন নগরীর মেসার্স তৃপ্তি ফুডস প্রোডা. অ্যান্ড কনফেকশনারির মালিক আবু সাইদ, মেসার্স বজল বেকারির মালিক নুরুল আবছার, হামজারবাগ এলাকার মেসার্স মায়ের দোয়া বেকারির মালিক মো. রিপন, বিবিরিহাট এলাকার মেসার্স হাজি মান্নান বেকারি অ্যান্ড কনফেকশনারির মালিক মো. আব্দুল হাকিম, শেখ মুজিব রোডে অবস্থিত মেসার্স মি. টুনি ফুড এর মালিক মো. আবু নাসের চৌধুরী ও মো. আখতার হোসেন, দেওয়ানহাট মোড়ে অবস্থিত মেসার্স মুম্বাই সুইটস অ্যান্ড বেকার্স এর মালিক মো. মহিউদ্দীন এবং আতুরার ডিপু এলাকার মাবিয়া বেকারির মালিক আব্দুল হাকিম। গতকাল সোমবার এ ৭ প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালায় বিএসটিআই।

মামলার বাদি বিএসটিআই কর্মকর্তা মো. সাফায়েত হোসেন জানান, প্রতিষ্ঠান গুলো দীর্ঘদিন ধরে পণ্যের গুণগত মান যাচাই ব্যতিত এবং বিএসটিআ’র লাইসেন্স নবায়ন না করে পণ্য বিক্রয় ও বিতরণ করছিল। এটি বিএসটিআই অর্ডিন্যান্স ১৯৮৫ এবং সংশোধিত আইন ২০০৩ এর ২৪ ধারার পরিপন্থী এবং ৩১-এ ধারা অনুযায়ী শাস্তিযোগ্য অপরাধ বিবেচিত হওয়ায় প্রতিষ্ঠানগুলোর মালিকের বিরুদ্ধে মামলা করেছি।

এদিকে, নগরীর উত্তর হালিশহরের আব্বাসপাড়ায় একটি নকল ডিটারজেন্ট কারখানা সিলগালা করে দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তামিম আল ইয়ামীন মঙ্গলবার এ অভিযানে নেতৃত্বে দেন।

ম্যাজিস্ট্রেট তামিম জানান, বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) লাইসেন্স না নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে উত্তর হালিশহর আব্বাস পাড়ায় মারিয়া এন্টারপ্রাইজ নামক একটি প্রতিষ্ঠান পাওয়ার প্লাস নামে লেমন পাউডার তৈরি ও সুদৃশ্য মোড়কে বাজারজাত করে আসছিল। অভিযানকালে তিন টন নকল ডিটারজেন্ট পাউডার ধ্বংস করা হয় এবং বিএসটিআই অধ্যাদেশ ১৯৮৫ অনুযায়ী কারখানার মালিক খাজা মাইনুদ্দিনকে দুই মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

এই বিভাগের আরো সংবাদ