সবজিতে স্বস্তি, কমেনি তেলের দর
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » পণ্যবাজার

সবজিতে স্বস্তি, কমেনি তেলের দর

শীতের তীব্রতা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রাজধানীর কাঁচা বাজারে বেড়েছে মৌসুমী সবজির সরবরাহ। ফলে দাম কম থাকায় স্বস্তিতে ক্রেতারা। সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্রবারে রাজধানীর শান্তিনগর কাঁচাবাজারসহ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা যায়, বেশিরভাগ সবজি কেজি প্রতি ২০ থেকে ৩০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে। গত সপ্তাহে এগুলো বিক্রি হয়েছে কেজি প্রতি ৩০ থেকে ৪০ টাকা দরে।

bazarএদিকে পাইকারি বাজারে ভোজ্যতেলের দাম লিটার প্রতি ৫ টাকা কমানো হলেও কমেনি খুচরা বাজারে। রাজধানীর খুচরা বাজারগুলোতে এখনও আগের দামেই বিক্রি হতে দেখা গেছে সয়াবিন ও পাম তেল।

সম্প্রতি সচিবালয়ে ভোজ্যতেলের দাম লিটার প্রতি ৫ টাকা কমানোর ঘোষণা দেন বাংলাদেশ ভেজেটেবল অয়েল রিফাইনারস অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান। যা গত শনিবার থেকে খুচরা বাজারে কার্যকর করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে আজও বাজারে আগের দামে ভোজ্যতেল বিক্রি হতে দেখা গেছে।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, লিটার প্রতি খোলা সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ৮৫ থেকে ৯০ টাকায়। এছাড়া ব্র্যান্ডের মধ্যে রুপচাঁদা প্রতি লিটার ১০০ টাকা, তীর ৯৫ টাকা। এছাড়া খোলা পাম তেল ৫৮ থেকে ৬০ টাকা ও সুপার পাম তেল ৬২ থেকে ৬৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বোতলজাত রাধুনী সরিষার তেল ২১০ টাকা ও তীর ১৯০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে।

তেলের দাম না কমার বিষয়ে জানতে চাইলে শান্তিনগর বাজারে নুরজাহান স্টোরের সত্ত্বাধিকারী কামরুল ইসলাম অর্থসূচককে বলেন, নতুন দরের তেল এখনও বাজারে আসেনি। তাছাড়া তেলের দাম কমার বিষয়ে কোনো কোম্পানি এখনও নিশ্চিত করেনি। আমরা বেশি দামে কিনেছি। তাই আগের দামেই বিক্রি করছি।

বাজারে দেখা যায়, এক সপ্তাহের ব্যবধানে কিছু কিছু সবজির দাম কেজিতে ৫ থেকে ১০ টাকা কমেছে। করলা কেজিপ্রতি ৫০ টাকা, ফুল কপি ২৫ টাকা, বাধা কপি ২০-২৫ টাকা, শালগম ২০ টাকা, বেগুন ৩০, টমেটো ৩০ শিম ২৫-৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া কাঁচা মরিচ পাওয়া যাচ্ছে কেজিপ্রতি ৫০-৬০ টাকায়।

মানভেদে প্রতিকেজি দেশি মসুরডাল ১৪০-১৫০ টাকা দরে ও আমদানি করা মোটা মসুর ডাল বিক্রি হচ্ছে ১০০-১১০ টাকা দরে।
দেশি ও আমদানি করা পেঁয়াজ আগের সপ্তাহের দাম অর্থাৎ ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। দেশি রসুন ১৪০ টাকা ও আমদানি করা মোটা রসুন ১৬০ টাকা দরে, দেশি আদা ৮০ টাকা ও মোটা আদা বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা।

কথা হয় শান্তিনগর বাজারে আসা রহিমা খাতুনের সঙ্গে। তিনি বলেন, গত সপ্তাহ থেকে এ সপ্তাহে সবজির দাম কিছুটা কম। তাই একটু বেশি করেই কিনে রাখছি।

মাছবাজার ঘুরে দেখা গেছে, কেজি প্রতি বড় রুই ৩৫০-৪০০ টাকা, ছোট রুই ২৫০-৩০০ টাকা।  শোল ৪৫০ টাকা ও মাগুর ৫০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। প্রতি কেজি ছোট শিং পাওয়া গেছে ৪০০ টাকায়। এছাড়া বড় কাতলা ৪০০ টাকা, বোয়াল ৬০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

ফার্মের মুরগির লাল ডিম প্রতি হালি ৩২-৩৪ টাকা, দেশি মুরগির ডিম ৪০ টাকা ও হাসের ডিম প্রতি হালি ৪৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। ব্রয়লার ১৬৫ টাকা ও লেয়ার ১৩০ টাকা কেজি, গরুর মাংস ৪০০ টাকা, খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৫৫০ থেকে ৬০০ টাকা।

অর্থসূচক/শাফায়াত

এই বিভাগের আরো সংবাদ