অর্থনীতির চাকা ঘুরাতে ডিজিটাল মুদ্রা আনতে চায় চীন
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » টেক

অর্থনীতির চাকা ঘুরাতে ডিজিটাল মুদ্রা আনতে চায় চীন

যত দ্রুত সম্ভব ডিজিটাল মুদ্রা ‘বিটকয়েন’ চালু করার পরিকল্পনা করছে চীন। দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানিয়েছে, এ নিয়ে ২০১৪ সাল থেকে তারা গবেষণা করছে। এটি বাস্তবায়ন হলে তা কেমন হবে সেটাও পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।

চলতি সপ্তাহে ব্যাংকের ওয়েবসাইটে এ তথ্য তুলে ধরে বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। তবে কবে নাগাদ এই মুদ্রা বাস্তবতা পেতে পারে বা ইউয়ানের সঙ্গে কীভাবে কাজ করবে তা বিবৃতিতে বলা হয়নি।bitcoin

এ নিয়ে আজ শুক্রবার সিএনএন সংবাদ প্রকাশ করেছে। পিপলস ব্যাংক অব চায়নার বরাত দিয়ে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, ডিজিটাল মুদ্রা ইস্যু করার ফলে বর্তমানে যে কাগুজে মুদ্রা প্রচলিত আছে তার খরচ কমবে। লেনদেনে স্বচ্ছতা ও সুবিধা বৃদ্ধি পাবে; মানি লন্ডারিং, কর ফাঁকি ও মুদ্রা নিয়ে অন্যান্য কেলেঙ্কারি কমে আসবে।

চলতি সপ্তাহে বেইজিং অনুষ্ঠিত এক বৈঠকেও বিষয়টি উল্লেখ করা হয়।

স্বাধীন গ্রাহক থেকে গ্রাহকের মধ্যে অনলাইন লেনদেনের ডিজিটাল মাধ্যম হচ্ছে বিটকয়েন। ওপেন সোর্স ক্রিপ্টোগ্রাফিক প্রটোকলের মাধ্যমে লেনদেন হওয়া সাংকেতিক মুদ্রার নাম এটি। এ ভারচুয়াল মুদ্রা লেনদেনের জন্য কোনো ধরনের আর্থিক প্রতিষ্ঠান, নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজন পড়ে না।

গেল কয়েকবছরে বিটকয়েনের ব্যবহার বেড়ে যাওয়ায় ডিজিটাল মুদ্রার কথা আলোচনায় এসেছে।

২০০৮ সালে বিটকয়েন উদ্ভাবন করেন কম্পিউটারবিজ্ঞানী সাতোশি নাকামোতো। এটি তার ছদ্মনাম। বিটকয়েন ব্যবহার করে অনলাইনে খুব সহজে কেনা-বেচা করা যায় বলে এ মুদ্রাব্যবস্থাকে পিয়ার-টু-পিয়ার লেনদেন বা স্বাধীন গ্রাহক থেকে গ্রাহকের মধ্যে অনলাইন লেনদেন নামে অবহিত করা হয়। বিটকয়েনের লেনদেনটি বিটকয়েন মাইনার নামে একটি সার্ভার কর্তৃক সুরক্ষিত থাকে। পিয়ার-টু-পিয়ার যোগাযোগব্যবস্থায় যুক্ত থাকা একাধিক কম্পিউটার বা স্মার্টফোনের মধ্যে বিটকয়েন লেনদেন হলে এর কেন্দ্রীয় সার্ভার ব্যবহারকারীর লেজার হালনাগাদ করে দেয়।

গত বছর ইকুয়েডর ডিজিটাল মুদ্রা ব্যবহার শুরু করা প্রথম দেশ হয়েছে। আর ওই বছরের মে মাসে নাসডাক পুঁজিবাজারও বিটকয়েন লেনদেন প্রযুক্তির আওতায় এসেছে।

সিএনএনের খবরে বলা হয়, পুঁজিবাজারে অস্থিরতা ও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির শ্লথ গতির মধ্যে ইউয়ানের মান পতনের কারণে বিনিয়োগকারীদের অনেকেই বাজার থেকে অর্থ তুলে নিচ্ছে।

ব্যাংক বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ডিজিটাল মুদ্রা চালু হলে ইউয়ানের ওপর কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণ বাড়বে।

বর্তমানে অর্থনীতি নিয়ে অনেকটা ধুকে ধুকে চলছে চীন। গত ২৫ বছরের মধ্যে এবারই সর্বনিম্ন প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে দেশটি। বিশেষজ্ঞদের অনেকেই মনে করেন, এ অবস্থা চলতে থাকলে খুব শিগগির দেশটির বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির স্থান থেকে সরে আসবে।

অর্থসূচক/শাহীন

এই বিভাগের আরো সংবাদ